default-image

কোচ হিসেবে হটনের অনেক অভিজ্ঞতা। জিম্বাবুয়ে ছাড়াও ইংলিশ কাউন্টি ক্রিকেটে ডার্বিশায়ারের হেড কোচ হিসেবে কাজ করেছেন। কোচ ছিলেন মিডলসেক্স, সমারসেট ও উস্টারশায়ারের। জিম্বাবুয়ের ঘরোয়া টি–টোয়েন্টি লিগেও একটি ফ্র্যাঞ্চাইজি দলের কোচ হিসেবে কাজ করেছেন গত মৌসুমে। জিম্বাবুয়ে ক্রিকেটের অন্যতম সেরা এই ক্রিকেটার মনে করেন, কোচ হিসেবে জিম্বাবুয়ে দলের বড় ধরনের উন্নতিতে অবদান রাখতে পারবেন।

হটন মনে করেন, জিম্বাবুয়ে ক্রিকেট দল হয়তো সেভাবে ফল পাচ্ছে না, তবে সেটি দেশটির ক্রিকেটের পুরো পরিচয় দেয় না, ‘এখানে খুব ভালো ক্রিকেট হয়। জিম্বাবুয়ে জাতীয় ক্রিকেট দলের ফলে হয়তো সেটির প্রতিফলন নেই। কিন্তু সত্যি বলতে কি, এখন ঘরোয়া পর্যায়ে যে মানের ক্রিকেট হয়, সেটি আমাদের সময়ের চেয়ে অনেক উন্নত।’

জিম্বাবুয়েকে আবার কীভাবে আগের জায়গায় ফেরাবেন হটন? এর একটা রূপরেখাও জানিয়েছেন তিনি, ‘আমাদের এখন ইতিবাচক হতে হবে আবারও। আমি তাদের আত্মবিশ্বাস ফেরাতে কাজ করব। সাম্প্রতিককালে জিম্বাবুয়ে দল বেশ কিছু ম্যাচ হেরেছে। আমি তাদের ভালো খেলতে সহায়তা করব। ইতিবাচক ক্রিকেট খেলাব, যাতে তারা ভালো ফল করা শুরু করে।’

default-image

১৯৯২ সালে ভারতের বিপক্ষে জিম্বাবুয়ের অভিষেক টেস্টে শতরান করেছিলেন হটন। সেটি ছিল টেস্ট ইতিহাসে দেশেরই অভিষেক টেস্টে কোনো ক্রিকেটারের শতকের দ্বিতীয় ঘটনা। প্রথমটি ছিল ১৮৭৬–৭৭ মৌসুমে অস্ট্রেলিয়ার চার্লস ব্যানারম্যানের। এ তালিকায় তৃতীয় নাম বাংলাদেশের আমিনুল ইসলামের। এরপর আয়ারল্যান্ডের কেভিন ও’ব্রায়েনও যোগ দিয়েছেন এই দলে। হটনের ১২১ রানের ইনিংসটিতে জিম্বাবুয়ে ভারতের বিপক্ষে অভিষেক টেস্ট ড্র করেছিল। জিম্বাবুয়ে ছিল অস্ট্রেলিয়ার পর প্রথম টেস্ট দল, যারা নিজেদের অভিষেক টেস্ট হারেনি।

দেশের হয়ে খেলেছেন ২২টি টেস্ট আর ৬৩টি ওয়ানডে। ১৯৯৪ সালে বুলাওয়েতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে তাঁর ২৬৬ রানের ইনিংসটি এখনো টেস্টে জিম্বাবুয়ের পক্ষে সর্বোচ্চ। ১৯৮৩, ১৯৮৭ ও ১৯৯২ সালের বিশ্বকাপ খেলেছেন। ১৯৮৭ সালে তিনি ছিলেন জিম্বাবুয়ের অধিনায়ক।

২০১৫ সালে সর্বশেষ বিশ্বকাপে খেলেছে জিম্বাবুয়ে। ২০১৯ সালে বাছাইপর্ব উতরাতে পারেনি ইতিহাসের নবম টেস্ট খেলুড়ে দেশটি। খেলতে পারেনি সর্বশেষ টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও। হটনের প্রথম লক্ষ্য এ বছরের শেষে অস্ট্রেলিয়াতে অনুষ্ঠিত টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ও আগামী বছরের ওয়ানডে বিশ্বকাপে জিম্বাবুয়েকে নিয়ে যাওয়া।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন