বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

ওদিকে শেখ জামাল থেকে ৪ পয়েন্ট পিছিয়ে থাকা রূপগঞ্জও লড়ে যাচ্ছে। আজ বিকেএসপিতে তামিম ইকবালের প্রাইম ব্যাংককে শেষ ওভারের রোমাঞ্চকর ম্যাচে হারিয়েছে মাশরাফির রূপগঞ্জ। প্রাইম ব্যাংকের দেওয়া ১৫২ রানের লক্ষ্য ২ বল বাকি থাকতে পেরিয়ে গেছে রূপগঞ্জ, হাতে ছিল ৩ উইকেট।

পাশের মাঠে আবাহনীকে হারিয়ে দিয়েছে গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স। আকবর আলীদের ২৭৬ রান তাড়া করতে নেমে ২৪৯ রানে অলআউট হয়েছে আবাহনী। ২৭ রানের জয়ে পয়েন্ট তালিকায় এক ধাপ উন্নতির পর গাজী গ্রুপ এখন পাঁচে। ১৪ পয়েন্ট নিয়ে চারেই আছে আবাহনী।

রূপগঞ্জ টাইগার্স-শেখ জামাল

মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে টসে জিতে রূপগঞ্জ টাইগার্সকে আগে ব্যাটিংয়ে পাঠায় শেখ জামাল। টপ অর্ডারে জাকির হাসানের ৭৫ ও শেষের দিকে পাকিস্তানি ব্যাটসম্যান সাদ নাসিমের ৫০ রান টাইগার্সকে ৬ উইকেটে ২৪৭ রানে পৌঁছে দেয়। শেখ জামালের হয়ে সর্বোচ্চ ৩ উইকেট নিয়েছেন মেহেদী হাসান মিরাজ। রান তাড়ায় হোঁচট খেতে হয়েছে শেখ জামালকে। ৩৩ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে বিপদে পড়ে ইমরুল কায়েসের দল। মুশফিকুর রহিম এবারের ঢাকা লিগে তাঁর প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমে প্রাথমিক ধাক্কাটা সামলে দেন ৪২ বলে ৩২ রানের ইনিংস খেলে। ৩ রানের মধ্যে মুশফিক ও পারভেজ রসুল বিদায় নিলে ৮১ রানে ৫ উইকেট হারায় শেখ জামাল।

default-image

এরপর মিরপুরে শুরু হয় নুরুল শো। মিরাজের সঙ্গে ১৩৪ রানের জুটি গড়ে ম্যাচের গল্পটাই বদলে দেন তিনি। এরপর জিয়াউর রহমানকে নিয়ে ১৫ বলে আরও ৩৬ রান যোগ করেন, এর মধ্যে জিয়ার অবদান ৫ বলে ৩ রান। জুটির শেষ ২৬ রানই এসেছে ইনিংসের ৪৯তম ওভারে। জয়ের জন্য শেষ ২ ওভারে শেখ জামালের দরকার ছিল ২২ রান। নুরুল ম্যাচটি আর শেষ ওভারে নেননি। মুকিদুল ইসলামের করা ৪৯তম ওভারে ৩টি ছক্কা ও ২টি চার মেরে ২৬ রান নিয়েছেন। তাতেই ৪ উইকেটের জয় পেয়ে যায় শেখ জামাল। নুরুল অপরাজিত ছিলেন ১১৮ বলে ১৩২ রান করে। নুরুলের লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারের তৃতীয় শতকে ১০টি চার ও ৫টি ছক্কা ছিল।

default-image

প্রাইম ব্যাংক-লিজেন্ডস অব রূপগঞ্জ

বিকেএসপির ৪ নম্বর মাঠে সাকিব-তামিমের ম্যাচটি গড়িয়েছে শেষ ওভারে। ভেজা আউটফিল্ডের কারণে খেলা শুরু হতে দেরি হওয়ায় রূপগঞ্জ ও প্রাইম ব্যাংকের ম্যাচটির ওভার কমিয়ে ৩৩–এ আনা হয়। রূপগঞ্জের আমন্ত্রণে আগে ব্যাট করতে নেমে প্রাইম ব্যাংকের শুরুটা একদমই ভালো হয়নি। তামিম ইকবাল আজ প্রিমিয়ার লিগে নিজের প্রথম ম্যাচেই আউট হন ৮ রান করে।

সেটিও আবার সাকিব আল হাসানের বলে। ইনিংসের চতুর্থ ওভারে প্রথমবারের মতো বোলিংয়ে এসেই তামিমকে মিড উইকেট ফিল্ডারের তালুবন্দী করেন। এরপর প্রাইম ব্যাংকের ইনিংস একাই টেনেছেন এনামুল। দারুণ ছন্দে থাকা এই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ৯১ বলে ৭৩ রান করেছেন ৬টি চার ও ১টি ছক্কায়। প্রিমিয়ার লিগ লিস্ট ‘এ’ স্বীকৃতির পর এক আসরে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড এখন এনামুলের।

এর আগে প্রিমিয়ার লিগের এক আসরে সর্বোচ্চ রানের রেকর্ড ছিল সাইফ হাসানের দখলে। ২০১৮-১৯ মৌসুমে তিনি ৮১৪ রান করেছিলেন। এবারের প্রিমিয়ার লিগে এটি এনামুলের নবম পঞ্চাশোর্ধ্ব রানের ইনিংস। সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত ১২ ইনিংসে দুই শতক ও সাত অর্ধশতকে ৮৭৮ রান করেছেন এনামুল। তাঁর ৭৩ রানে ভর করেই প্রাইম ব্যাংক ১৫২ রান করতে সক্ষম হয়।

default-image

এই রান তাড়া করতেও হিমশিম খেতে হয়েছে রূপগঞ্জকে। ৮৪ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে জয়ের আশা প্রায় ছেড়েই দিয়েছিল দলটি। সাকিব, সাব্বির থেকে শুরু করে এবারের লিগে ধারাবাহিক রান সংগ্রাহক নাঈম ২০ ওভারের মধ্যেই আউট। ড্রেসিংরুমে ফিরে ঢাকায় ফিরে যান সাকিব।

এরপরই ম্যাচের মোড় ঘুরতে থাকে তানভির হায়দার (৩১) ও মুক্তার আলীর (৩৯) ব্যাটিংয়ে। দুজন মিলে ৭০ রানের অবিচ্ছিন্ন জুটি গড়েন। শেষ ওভারে জয়ের জন্য যখন রূপগঞ্জের ৯ রান দরকার, তখন মেহেদী হাসানের করা ওভারের চতুর্থ বলে ছক্কা মেরে ম্যাচ জেতান মুক্তার আলী।

গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্স-আবাহনী

পাশের মাঠে ব্যাটিং–তাণ্ডব দেখিয়েছেন আবাহনী ও গাজী গ্রুপ ক্রিকেটার্সের টপ অর্ডার ব্যাটসম্যানরা। ভেজা আউটফিল্ডের কারণে খেলা ৩৬ ওভারে কমিয়ে আনায় আগে ব্যাট করা গাজীর ব্যাটসম্যানরা হাত খুলে খেলেছেন। মাহমুদুল হাসান ৬৭ বল খেলে ৮৮ রান করে পথ দেখিয়েছেন ফরহাদ হোসেন (৫৭) ও ধ্রুব শোরেকে (৫৫)। দুজনই অর্ধশতক করেছেন। গাজীও পেয়েছে ৬ উইকেটে ২৭৬ রানের বড় পুঁজি।

default-image

রান তাড়ায় আবাহনীও রান তুলেছে চোখে চোখ রেখে। পুরো ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ ঘুমিয়ে মুনিম শাহরিয়ার জেগে উঠেছেন ৩৯ বলে ৬১ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলে। মুনিমের ব্যাটিংয়ে ১০ ওভারেই আবাহনীর রান ১০০ ছাড়িয়ে যায়। সেখান থেকে ২৭৬ রান অসম্ভব মনে হচ্ছিল না। কিন্তু জোড়ায় জোড়ায় উইকেট হারিয়ে উল্টো ভালো শুরুর সুবিধা নিতে পারেনি আবাহনী। মুনিমের পর নাজমুল হোসেন ৭৬ ও মোসাদ্দেক হোসেন ৭৩ রান করেছেন। কিন্তু মাত্র ৩৯ রানে শেষ ৭ উইকেট হারিয়ে আবাহনী অলআউট হয় ২৪৯ রানে। গাজীর অনিয়মিত স্পিনার আল আমিন ৪.৩ ওভার বল করে ২২ রান দিয়ে নিয়েছেন ৬ উইকেট। রানবন্যার ম্যাচেও তাই ম্যাচসেরা আল আমিন।

খেলাঘর-ব্রাদার্স ইউনিয়ন

ফতুল্লায় রেলিগেশন লিগের ম্যাচে খেলাঘরকে হারিয়েছে ব্রাদার্স ইউনিয়ন। ম্যাচটির ওভার কমিয়ে ৩৭–এ আনা হয়েছিল। ব্রাদার্সের আমন্ত্রণে ব্যাট করতে নেমে খেলাঘর ১৫২ রানে অলআউট হয়। প্রথম চার ব্যাটসম্যানের কেউ দুই অঙ্কে যেতে পারেননি। শচীন বেবির ৮২ বলে ৬৪ রানের ইনিংসটিই তাদের দেড় শ পার করিয়েছে। ব্রাদার্সের লক্ষ্য দাঁড়ায় ৩৭ ওভারে ১৫৩ রান। ইমতিয়াজ হোসেনের অপরাজিত ৮৭ রানে ১৩ বল ও ৮ উইকেট হাতে রেখেই পেরিয়ে যায় ব্রাদার্স।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন