default-image

দিল্লির ফিল্ডারদের ক্যাচ মিস আর বাজে ফিল্ডিংয়ের সুবিধা নিয়ে ২০ ওভারে ৩ উইকেটে ১৯৫ রান করেছে লক্ষ্ণৌ। বড় লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে ১৩ রানে ২ উইকেট হারিয়ে ফেলে দিল্লি। দুই ওপেনার পৃথ্বী শ ও ডেভিড ওয়ার্নার ফিরে যাওয়ার পর অধিনায়ক পন্ত মিচেল মার্শের সঙ্গে জুটি বাঁধেন। ভালোই খেলছিলেন দুজনে। কিন্তু তৃতীয় উইকেটে তাদের ২৫ বলে ৬০ রানের জুটি ভাঙে মার্শের আউটে। এরপর ১৩ ওভারের মধ্যে ললিত আর পন্তও চলে গেলে দিল্লির একমাত্র আশা হয়ে উইকেটে ছিলেন রোভম্যান পাওয়েল।

কিন্তু অক্ষর প্যাটেলকে নিয়ে ষষ্ঠ উইকেটে ১৯ বলে ২৬ রানের জুটি গড়ার পর আউট হয়ে ফেরেন পাওয়েলও। তাঁর আউটে অনেকটাই ফিকে হয়ে যায় দিল্লির জয়ের আশা। কিন্তু অষ্টম উইকেটে অক্ষর আর কুলদীপ যাদবের ব্যাটিং আবার আশা জাগিয়ে তোলে দিল্লি শিবিরে। অসাধারণ ব্যাটিং করে ম্যাচটিকে তাঁরা শেষ ওভারের রোমাঞ্চে নিয়ে গেলেও দলকে জেতাতে পারেননি। শেষ দুই ওভারে জয়ের জন্য দিল্লির প্রয়োজন ছিল ৩৬ রান। ১৯তম ওভারে ১৫ রান তুলতে পারেন কুলদীপ ও অক্ষর। শেষ ওভারে দরকার ছিল ২১ রান। তাঁরা নিতে পেরেছেন মাত্র ১৪ রান।

default-image

এর আগে লক্ষ্ণৌ দুই শর কাছাকাছি রান করতে পারে লোকেশ রাহুল ও দীপক হুদার দুটি অর্ধশতকে। শার্দুলের বলে আউট হওয়ার আগে ললিতের হাতে ক্যাচ দেওয়ার আগে ৫১ বলে চারটি চার ও পাঁচটি ছয়ে ৭৭ রান করেছেন রাহুল। হুদা ৩৪ বলে ৫২ রান করেছেন ছয় চার ও এক ছক্কায়। দিল্লির পক্ষে ৪০ রান দিয়ে ৩ উইকেট নিয়েছেন শার্দুল। তবে ম্যাচের সেরা বোলার লক্ষ্ণৌয়ের মহসিন খান। ১৬ রান দিয়ে দিল্লির ৪টি উইকেট নিয়েছেন তিনি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন