বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

‘কোনো নির্দিষ্ট ধরনের ক্রিকেটকে প্রাধান্য দেওয়া হবে না। আগামী বছরই আমাদের আরেকটি টি–টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে হবে। এ ছাড়াও আছে ওয়ানডে বিশ্বকাপ। টেস্টের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপও আছে। তবে খেলোয়াড়দের মানসিক ও শারীরিকভাবে সুস্থ থাকাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। কাজ ভাগ করে নেওয়াটা দরকার, যাতে বড় প্রতিযোগিতার আগে সবাই সুস্থ ও মানসিকভাবে ফুরফুরে থাকে। ফুটবলেও বড় খেলোয়াড়েরা সব ম্যাচ খেলে না’—দ্রাবিড় যেন শুরুতেই আশ্বস্ত করলেন।

দ্রাবিড়–যুগে ভারতীয় দলে কী কী পরিবর্তন আসছে—এ প্রশ্নে ভারতীয় ক্রিকেটের এ কিংবদন্তি ফাঁদে পা দেননি। তাঁর সোজাসাপটা জবাব, ‘দল পাল্টালে কিছু তো বদলে যাবেই। আমি ক্রিকেটারদের সঙ্গে মিশে গিয়ে তাদের সেরাটাই বের করার চেষ্টা করব। আমার কোচিংনীতি এটিই।’

default-image

তিন সংস্করণের জন্য আলাদা দল করার চিন্তা এখনই তাঁর নেই বলে জানিয়েছেন দ্রাবিড়। তবে এখানেও ক্রিকেটারদের টানা না খেলানোর কথাই ইঙ্গিতে জানিয়েছেন তিনি, ‘কিছু খেলোয়াড় থাকে, যারা সব সংস্করণেই খেলে। আমাদের দলেও এমন কিছু খেলোয়াড় থাকবে। তবে ক্রিকেটারদের চাপ কমানোর চেষ্টা করা হবে। এখনো তিন সংস্করণে আলাদা দল হবে কি না, সে ব্যাপারে কোনো সিদ্ধান্ত নিইনি।’

দ্রাবিড় বলেন, ‘কোনো একধরনের ক্রিকেটকে প্রাধান্য দেওয়া হবে না। আমাদের সামনে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ, এক দিনের বিশ্বকাপ এবং টেস্টের বিশ্ব চ্যাম্পিয়নশিপ রয়েছে। আমরা এখনো সিদ্ধান্ত নিইনি আলাদা ধরনের ক্রিকেটে আলাদা দল হবে কি না। কিছু ক্রিকেটার থাকবেনই যাঁরা কোনো একধরনের ক্রিকেটে ভালো খেলেন, সেটা সব দেশেই থাকে।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন