আইপিএলে এবার শুরুটা ভালোই করেছিলেন কোহলি। পাঞ্জাব কিংসের বিপক্ষে ৪১ রানের ইনিংস খেললেও পরের দুই ম্যাচে ভালো করতে পারেননি কোহলি। কলকাতা নাইট রাইডার্সের বিপক্ষে ১২ ও গতকাল রাজস্থান রয়্যালসের বিপক্ষে পাঁচ রান করে আউট হন।

এ দুটি ম্যাচে কোহলি বাঁহাতি পেসারের ভেতরে ঢোকানো ডেলিভারিতে আউট না হলেও, এমন বলে তাঁর সমস্যাটা চোখে পড়েছে আকরামের। আর ভারত ও রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স বেঙ্গালুরুর অধিনায়কের দায়িত্ব কোহলি ছেড়েছেন শুধু ব্যাটিংয়ে মনোযোগ দিতে।

এর কারণও আছে। গত দুই বছরে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে কোহলির শতক নেই। তাঁর মাপের ব্যাটসম্যানের সঙ্গে এ পরিসংখ্যান বেমানান। ২০১৯ সালে বাংলাদেশের বিপক্ষে কলকাতায় গোলাপি বলের টেস্টে সর্বশেষ আন্তর্জাতিক শতকের দেখা পান কোহলি।

ইউটিউবে ‘ভিইউস্পোর্ট স্ট্রিমিং’ চ্যানেলে কোহলিকে ব্যাটিং–টিপস দেন ওয়াসিম আকরাম, ‘আমার মনে হয় ইনিংসের শুরুতে কোহলির একটু ছড়িয়ে দাঁড়ানো উচিত। তাতে শুরুর কয়েকটা ওভারে ভেতরে ঢোকা ডেলিভারিগুলো খেলতে সুবিধা হবে। ইনসুইং ডেলিভারিগুলোও তাঁর প্যাডে লাগবে না, সোজা ব্যাটে খেলতে পারবে। সে যদি মনে করে, বাঁহাতি বোলারদের বিপক্ষে খেলতে সমস্যা হচ্ছে, তাহলে এটা করতে পারে।’

ছড়িয়ে দাঁড়ানো—এ বিষয়টা ব্যাখ্যার দাবি রাখে। ব্যাটসম্যান ক্রিজে দাঁড়ানোর পর তাঁর বাঁ কাঁধ সাধারণত বোলারের প্রান্তের স্টাম্প বরাবর থাকে। এর ব্যতিক্রমও আছে, তবে বেশির ভাগ ক্ষেত্রে এটাই প্রচলিত। সে ক্ষেত্রে বাঁহাতি পেসার তাঁর ওভার দ্য উইকেট থেকে বল করলে ডেলিভারি দেখতে ডানহাতি ব্যাটসম্যানের সমস্যা হতে পারে।

default-image

কাঁধটা লংঅনের দিকে তাক করে দাঁড়ালে বোলারকে দেখতে সুবিধা হয়, তখন বাঁহাতি পেসারের ভেতরে ঢোকানো ডেলিভারিও তুলনামূলক সহজে খেলা যায়। সে যা–ই হোক, ইনিংসের শুরুতে টিকে যেতে পারলে কোহলিকে থামানো কঠিন বলেই মনে করেন আকরাম, ‘কোহলির মতো কেউ প্রথম কয়েক ওভারে টিকে গেলে আমার মনে হয় না থামানো সহজ হবে।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন