বিজ্ঞাপন

আইপিএলে মুম্বাই ইন্ডিয়ানসের হয়ে খেলার সময় গত ১৮ অক্টোবর চোট পান রোহিত। হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটে পড়া এই ওপেনার নেটে ফিরলেও এখনো কোনো ম্যাচে নামেননি। এর মধ্যে রোহিতকে না রেখে প্রায় এক মাস পরের অস্ট্রেলিয়া সফরের জন্য দল ঘোষণা করে ভারত। কিন্তু যাঁকে ফিট নন বলে এক মাস পরের সফরে রাখেনি ভারত, সেই রোহিতই মুম্বাইয়ের হয়ে অনুশীলনে নামছেন দেখে বিতর্ক ছড়ায়।

গতকালই বোর্ডের এক কর্মকর্তা এ নিয়ে বলছিলেন, নেটে অনুশীলন করা ও ম্যাচ ফিটনেসের মধ্যে অনেক তফাত। হ্যামস্ট্রিং চোট একজন খেলোয়াড়ের দৌড়ের গতি পরিবর্তনে ভূমিকা রাখে। তাই পরিপূর্ণভাবে পরীক্ষা করেই সিদ্ধান্ত নেবে বোর্ড। আজ শাস্ত্রীর মুখেও একই সুর শোনা গেছে। রোহিতকে না নেওয়ার পেছনে স্বাস্থ্য পরীক্ষার ভূমিকাটাও জানিয়েছেন, ‘স্বাস্থ্যগত বিষয় যাঁরা দেখভাল করেন, তাঁরাই ব্যাপারটা সামলাচ্ছেন। আমরা এর সঙ্গে জড়িত নই। তাঁরা একটা প্রতিবেদন দিয়েছেন নির্বাচকদের কাছে। তাঁরা নিজেদের কাজটাই করেছেন। আমার এ ব্যাপারে বলার কিছু নেই। আমি দল নির্বাচনের সঙ্গেও জড়িত নই। আমি শুধু এটা জানি, স্বাস্থ্য পরীক্ষায় এটা বলা হয়েছে, সে যদি সতর্ক না হয়, তবে আবার চোটে পড়ার ঝুঁকিতে থাকবে।’

View this post on Instagram

Being happy never goes out of style 😉

A post shared by Rohit Sharma (@rohitsharma45) on

আইপিএল শেষ হলেই অস্ট্রেলিয়ায় উড়াল দেবে ভারত দল। ৩২ জনের বড় স্কোয়াড নিয়ে যাওয়া ভারতের সিরিজ অবশ্য শুরু হবে ২৭ নভেম্বর। সফরে তিনটি টি-টোয়েন্টি, তিনটি ওয়ানডে ও চারটি টেস্ট খেলবে ভারত। তবে এ সফরের আগে এখন পর্যাপ্ত সময় আছে বলেই সমর্থক ও সাবেক ক্রিকেটারদের অনেকের ধারণা, রোহিতের মতো এমন একজন গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটারের ক্ষেত্রে আরেকটু সময় নেওয়া উচিত ছিল বোর্ডের।

শাস্ত্রী এ ব্যাপারে কিছুটা ভিন্নমত পোষণ করেন। একজন ক্রিকেটারের মাঠে ফেরার জন্য বাড়তি প্রেরণা টের পান কোচ, কিন্তু নিজের অভিজ্ঞতা থেকেই জানেন, এসব ক্ষেত্রে তাড়াহুড়া ভালো ফল এনে দেয় না, ‘একজন খেলোয়াড় হিসেবে চোটে পড়ার চেয়ে হতাশাজনক আর কিছু হতে পারে না। মাঝেমধ্যে ঘর থেকে বের হয়ে কত দ্রুত ফিরতে পারবেন, সেটা দেখার ইচ্ছা হয়। কিন্তু এখানেই যত অনিশ্চয়তা লুকিয়ে থাকে। সমস্যা হলো, আপনার মাঠে নেমে খেলতে ইচ্ছা করবে, নিজের পরীক্ষা নিতে ইচ্ছা করবে। কিন্তু ভেতরে-ভেতরে আপনিই ভালো বলতে পারবেন শতভাগ সুস্থ কি না। নাকি চোটটা আবারও ফিরতে পারে।’

default-image

বোর্ড রোহিতের পুরো ব্যাপারটা পর্যবেক্ষণে রাখছে। ওদিকে তাঁর ফ্র্যাঞ্চাইজি মুম্বাই ইন্ডিয়ানস আশায় আছে, গ্রুপ পর্বের শেষ ম্যাচ বা প্লে-অফে খেলবেন রোহিত। শাস্ত্রী তাই একটু ভীত রোহিতকে নিয়ে, ‘আমি নিজে একজন ক্রিকেটার ছিলাম। আমি তাই ভয় পাচ্ছি। কারণ, ১৯৯১ সালে ঠিক হবে না জেনেও আমি অস্ট্রেলিয়ায় গিয়েছিলাম। ক্যারিয়ারটা ওখানেই শেষ হয়ে গেছে আমার। আমার উচিত ছিল তিন বা চার মাসের বিরতি নেওয়া, তাহলে আরও পাঁচ বছর ভারতের হয়ে খেলতে পারতাম। তাই অভিজ্ঞতা থেকেই বলছি, এটা একই ধরনের ঘটনা। আমি যেতে চেয়েছিলাম, চিকিৎসকেরা মানা করেছিলেন। কিন্তু লোভে পড়ে গিয়েছিলাম। দারুণ ফর্মে ছিলাম, তাই ফেরার জন্য খুব বেশি আগ্রহ ছিল। আমি আশা করব, রোহিতের ক্ষেত্রে ব্যাপারটা এত জটিল হবে না।’

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন