ইংল্যান্ড থেকে ফেরার পর আইসোলেশন শেষে শুক্রবার জৈব সুরক্ষাবলয়ে ঢোকার কথা ছিল শ্রীলঙ্কার। তবে তাদের এখন আরও দুই দিন থাকতে হবে আইসোলেশনে, অপেক্ষা করতে হবে পরবর্তী কোভিড-১৯ টেস্টের জন্য।

অবশ্য সিরিজ চালিয়ে যাওয়ার জন্য বিকল্প ব্যবস্থাও নিয়ে রেখেছে শ্রীলঙ্কা। কলম্বো ও ডাম্বুলাতে আরও দুটি দলকে রেখেছে তারা। শেষ পর্যন্ত প্রধান দল খেলতে না পারলে এ দুই গ্রুপ থেকেই ডাকা হবে খেলোয়াড়দের।

শ্রীলঙ্কা সফরে যে দল সফর করছে ভারতের, কার্যত সেটিও ‘দ্বিতীয় সারি’র। ওয়ার্ল্ড টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালের পর স্বাগতিকদের বিপক্ষে পাঁচটি টেস্ট খেলতে ইংল্যান্ডে আছে ভারতের একটি দল। সে দলে আছেন বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মারা। শ্রীলঙ্কা সফরে ভারতকে নেতৃত্ব দেবেন শিখর ধাওয়ান, কোচের দায়িত্ব পালন করবেন রাহুল দ্রাবিড়।

অন্যদিকে কোভিড-১৯ আঘাত করার আগেই অধিনায়কও বদলে ফেলেছে শ্রীলঙ্কা। বোর্ডের সঙ্গে চুক্তিসংক্রান্ত ঝামেলায় দায়িত্ব থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে কুশল পেরেরাকে। ভারতের বিপক্ষে সিরিজে তাদের নেতৃত্ব দেওয়ার কথা ছিল দাসুন শানাকার। এর আগে ইংল্যান্ডে জৈব সুরক্ষাবলয় ভাঙার দায়ে নিষেধাজ্ঞা দিয়ে দেশে পাঠানো হয়েছিল তিন ক্রিকেটার—কুশল মেন্ডিস, নিরোশান ডিকভেলা ও দানুস্কা গুনাতিলাকাকে।