default-image

কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালে আজ করোনার টিকা নিয়েছেন জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। টিকা কার্যক্রমকে আরও সহজ করতে একই সময়ে সেখানে উদ্বোধন হয়েছে কোভিড-১৯–এর টিকা নেওয়ার ‘সুরক্ষা’ অ্যাপ। এই অ্যাপের প্রথম ব্যবহারকারী হয়েছেন জাতীয় দলের ওপেনার সৌম্য সরকার।

সৌম্য ছাড়াও আজ প্রথম দফায় টিকা নিয়েছেন ওয়ানডে অধিনায়ক তামিম ইকবাল, তাসকিন আহমেদ, মেহেদী হাসান মিরাজ, শেখ নাঈম, নাছুম আহমেদ এবং প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গোসহ জাতীয় দলের কোচিং স্টাফ সদস্যরা। টিকা নিয়েছেন বিসিবির পরিচালক ও মিডিয়া কমিটির প্রধান জালাল ইউনুসও। আরও কয়েকজন ক্রিকেটারেরও আজকেই টিকা নেওয়ার কথা। বাকি ক্রিকেটাররা টিকা নেবেন ২০ ফেব্রুয়ারি।

টিকা নেওয়ার পর তাসকিন আহমেদ প্রথম আলোকে বলেন, ‘টিকা নেওয়ার পর থেকে মানসিকভাবে খুব ভালো অনুভব করছি। এখন পর্যন্ত কোনো শারীরিক সমস্যা নেই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ও বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডকে ধন্যবাদ এত সহজ ব্যবস্থা করে দেওয়ার জন্য।’ দেশবাসীর প্রতি তাসকিনের আহবান, ‘করোনাভাইরাসের সঙ্গে লড়াই করতে সবারই টিকা নেওয়া উচিত। সুরক্ষা অ্যাপ চালু হওয়ার পর এটি এখন আরও সহজ হয়েছে।’

default-image
বিজ্ঞাপন

এত দিন টিকা নেওয়ার জন্য নাম নিবন্ধন করতে হয়েছে শুধু সুরক্ষা ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। এখন থেকে মুঠোফোন থেকে ‘সুরক্ষা’ অ্যাপের মাধ্যমেও তা করা যাবে। ক্রিকেটারদের টিকা নেওয়া উপলক্ষেই আজ কুর্মিটোলা হাসপাতালে ‘সুরক্ষা’ অ্যাপের উদ্বোধনের আয়োজন করা হয়। অ্যাপের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ছিলেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ, বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানসহ আরও অনেকেই। স্বাস্থ্যমন্ত্রী অ্যাপের উদ্বোধন করার পর এর প্রথম ব্যবহারকারী হন ক্রিকেটার সৌম্য সরকার।

অ্যাপের মাধ্যমে নিবন্ধন করে টিকা নেওয়ার পর সৌম্যও বলেছেন, এতে টিকাগ্রহীতাদের কাজটা আরও সহজ হলো, ‘অ্যাপ চালু হওয়ায় নিবন্ধনের কাজটা এখন একদম সহজ হয়ে গেছে। অ্যাপে প্রয়োজনীয় তথ্য দিলেই আপনি টিকা দেওয়ার তারিখসহ সবকিছু পেয়ে যাবেন।’ টিকা নেওয়ার পর সৌম্যের মধ্যেও এখন কোনো পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। সৌম্যের সঙ্গে টিকা নিয়েছেন তাঁর স্ত্রীও।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন