বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

চতুর্থ দিন শেষবেলায় ৩ উইকেট হারিয়ে ফেলার পরও বাংলাদেশ যে একটু হলেও জয়ের স্বপ্ন দেখছিল, তাতে বড় ভরসার নাম ছিলেন মুশফিকুর রহিম। দলের অভিজ্ঞতম ব্যাটসম্যানকে দিয়েই শুরু হয়েছে উইকেট পতনের মিছিল। মহারাজের প্রথম বলেই স্ট্রাইক বদলেছেন নাজমুল। পরের তিন বল সামলে মুশফিক ফিরেছেন পঞ্চম বলে। আগের বল বাঁক খেয়েছে, এই বলটি ঢুকেছে। মুশফিকের ব্যাটকে ফাঁকি দিয়ে বল লেগেছে প্যাডে। রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি শূন্য রানে থাকা মুশফিক।

পঞ্চম বলে উইকেট পড়ার হ্যাটট্রিকের শুরুও এর মাধ্যমেই। মহারাজের পরের ওভারের পঞ্চম বলে ফিরলেন লিটন (২)। এতে অবশ্য মহারাজের কোনো কৃতিত্ব নেই, বরং লিটনের বাজে শট মিড অনে হারমারের হাতে ধরা পড়েছে।

default-image

সে তুলনায় ইয়াসিরকে আউট করা বলটি ছিল একজন বাঁহাতি স্পিনারের স্বপ্নের এক ডেলিভারি। মিডল স্টাম্পে পড়া বল ব্যাটসম্যানকে ফরোয়ার্ড ডিফেন্স করতে বাধ্য করেছে। মহারাজের বল বাঁক নিয়ে ব্যাটের পাশ ঘেঁষে বেরিয়ে গেছে, ভেঙে দিয়েছে ইয়াসিরের (৫) অফ স্টাম্প। সেটি ছিল মহারাজের দিনের তৃতীয় ওভারের পঞ্চম বল!

পরের ওভারে সাইমন হারমারের প্রথম বলেই ছক্কা মেরে পালটা আক্রমণের হুমকি দিলেন নাজমুল। কিন্তু প্রান্ত বদল করতেই সর্বনাশ। ওভারের শেষ বলে স্লিপে কিগান পিটারসেনের হাতে ধরা পড়লেন মেহেদী হাসান মিরাজ (০)।

এরপর নাজমুলও ফিরে যাওয়ার পর শেষটা দেখাই যাচ্ছিল। তা আসতে বেশি সময়ও লাগেনি।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন