অ্যাডিলেডে আগামীকাল বাংলাদেশ সময় বেলা দুইটায় ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভ পর্বে দুটি করে ম্যাচ জিতেছে রোহিত শর্মা ও সাকিব আল হাসানের দল। তবে সামগ্রিক রানরেটে অনেকটা এগিয়ে থাকায় পয়েন্ট তালিকার দুইয়ে আছে ভারতীয়রা, বাংলাদেশের অবস্থান তিনে। সেমিফাইনালের স্বপ্ন বাঁচিয়ে রাখতে কালকের ম্যাচ দুই দলের জন্যই ভীষণ গুরুত্বপূর্ণ।

শক্তিমত্তায় বাংলাদেশ যে ভারতের চেয়ে বেশ পিছিয়ে, ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে সেটা মেনেও নিয়েছেন সাকিব। তবে রাহুল দ্রাবিড়ের কণ্ঠে ভিন্ন সুর। প্রতিপক্ষকে সমীহ করার চিরন্তন বিষয়গুলোই ঘুরিয়ে-ফিরিয়ে বোঝাতে চেয়েছেন ভারতীয় দলের প্রধান কোচ। তাঁর দুশ্চিন্তা মূলত দুটি ব্যাপারে। অস্ট্রেলিয়ার কন্ডিশনে বড় দলের সঙ্গে ছোটদের ব্যবধান কমে আসা ও ক্রিকেটের ‘আজন্ম শত্রু’ বৃষ্টি।

দ্রাবিড় বলেছেন, ‘আমি ওদের (বাংলাদেশকে) বেশ সমীহ করি। মনে করি, ওরা খুব ভালো দল। সত্যি বলতে, এই সংস্করণ বিশেষ করে এবারের বিশ্বকাপ দেখিয়েছে, কোনো দলকে হালকাভাবে নেওয়ার সুযোগ নেই।’

টুর্নামেন্টের শুরু থেকে এখন পর্যন্ত বেশ কয়েকটি ‘অঘটন’ উদাহরণ হিসেবে সামনে এনেছেন দ্রাবিড়, ‘ইংল্যান্ডকে হারিয়ে আয়ারল্যান্ড দেখিয়েছে তারা কী করতে পারে। এ রকম আরও কিছু ম্যাচ আমরা দেখেছি। এখানে জয়ের ব্যবধান ১২-১৫ রান হলেও খুব বড় নয়। দুটি শটেরই তো ব্যাপার। সে কারণে কে ফেবারিট, স্পষ্ট করে বলা মুশকিল।’

অস্ট্রেলিয়ার কন্ডিশন সব দলকে সমান সুবিধা দিচ্ছে বলে মনে করেন ৪৯ বছর বয়সী এই কিংবদন্তি, ‘এই কন্ডিশন লেভেল প্লেয়িং ফিল্ড তৈরি করেছে। এখানকার বাউন্ডারিও বিশাল। উপমহাদেশে যে শটে ব্যাটসম্যানরা অনায়াসে ছক্কা পেয়ে যান, এখানে তাদের আউট হয়ে (ক্যাচ দিয়ে) ফিরতে হচ্ছে।’

বিশ্বকাপে বৃষ্টির দাপট এতটাই বেশি যে কেউ কেউ মজা করে ‘বৃষ্টিকাপ’ বলছেন। কাল বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচেও বৃষ্টির আভাস দিয়ে রেখেছে অস্ট্রেলিয়ার আবহাওয়া ব্যুরো। প্রতিকূল আবহাওয়া নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছেন দ্রাবিড়ও, ‘আমরা প্রকৃতিকে নিয়ন্ত্রণ করতে পারি না। আবহাওয়ার ব্যাপারটা ছাড়া সব দুর্দান্ত মনে হচ্ছে।’