কাউন্টি চ্যাম্পিয়নশিপে কাল সাসেক্স–মিডলসেক্স ম্যাচের দ্বিতীয় দিনে ৪০৩ বলে ২৩১ রানে আউট হন চারে নামা পূজারা।

ইংল্যান্ডের বিপক্ষে এজবাস্টন টেস্টে এক ইনিংসে অর্ধশতকের দেখা পাওয়া পূজারা সাসেক্সের ইতিহাসে প্রথম ব্যাটসম্যান, যিনি লর্ডসে মিডলসেক্সের বিপক্ষে দ্বিশতক পেলেন। কীর্তি আছে আরও।

‘হোম অব ক্রিকেট’ খ্যাত লর্ডসে পূজারার আগে সাসেক্সের হয়ে সর্বশেষ দ্বিশতক পাওয়া ব্যাটসম্যানটিও ভারতীয়। মহারাজা রনজিৎ সিং!

১৮৯৭ সালের ১৩ মে এমসিসির বিপক্ষে সাসেক্সের হয়ে ২৬০ রানের ইনিংস খেলেছিলেন রনজিৎ সিং। অর্থাৎ ১২৫ বছর ২ মাস ৭ দিন পর লর্ডসে নিজেদের কোনো খেলোয়াড়ের ব্যাট থেকে দ্বিশতক দেখল সাসেক্স। দিনের হিসেবে তা ৪৫ হাজার ৭২৩ দিন পর।

আগের দিন নেমেই শতক তুলে নেন পূজারা। কাল ছিল লন্ডনের ইতিহাসে অন্যতম উঞ্চ তাপমাত্রার দিন। এমন কন্ডিশনের মধ্যেই প্রায় ৯ ঘণ্টা ব্যাট করেন পূজারা। তাঁর দ্বিশতক ও টল আলসপের শতকে ৫২৩ রানে অলআউট হয় সাসেক্স। তাড়া করতে নেমে ১০৩ রানে দ্বিতীয় দিনের খেলা শেষ করে মিডলসেক্স।

রঞ্জিত সিং ভারতীয় ক্রিকেটের কিংবদন্তি। ১৯০৭ থেকে ১৯৩৩ পর্যন্ত ভারতের নওয়ানগড় অঞ্চল শাসন করেন। অনেকের মতেই, তিনি ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে স্টাইলিশ ব্যাটসম্যানদের একজন। কিংবদন্তি আছে, ব্যাটিংয়ে ‘লেগ গ্লান্স’ শটটি তাঁর হাত থেকেই এসেছে। কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা রঞ্জিৎ সিং ১৮৯৬ থেকে ১৯০২ সালের মধ্যে ইংল্যান্ডের হয়ে ১৫ টেস্ট খেলেন। ভারতের প্রথম শ্রেণির ক্রিকেট টুর্নামেন্ট রঞ্জি ট্রফির নামকরণ তাঁর নামেই।

দ্য অ্যাসোসিয়েশন অব ক্রিকেট স্ট্যাটিসটিশিয়ান অ্যান্ড হিস্টোরিয়ানসের (এসিএস) মতে, প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে সর্বোচ্চসংখ্যক দ্বিশতক পাওয়া ব্যাটসম্যানদের মধ্যে পূজারা যুগ্মভাবে পঞ্চম অবস্থানে।

৩৭টি দ্বিশতক নিয়ে সবার ওপরে অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি স্যার ডন ব্র্যাডম্যান। তাঁর চেয়ে একটি দ্বিশতক কম নিয়ে দুইয়ে ইংল্যান্ডের কিংবদন্তি ওয়ালি হ্যামন্ড। ইংল্যান্ডের হয়ে ৫১ টেস্ট খেলা ইএইচ হেনড্রেন ২২টি দ্বিশতক নিয়ে তিনে।

সমান ১৭টি দ্বিশতক নিয়ে যুগ্মভাবে চারে ইংল্যান্ডেরই দুই সাবেক হাবার্ট সাটক্লিফ ও মার্ক রামপ্রকাশ। সমান ১৬টি দ্বিশতক নিয়ে যুগ্মভাবে পঞ্চম অবস্থানে মোট চারজন—সিবি ফ্রাই, জ্যাক হবস, গ্রায়েম হিক ও পূজারা।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন