ইংল্যান্ড–দক্ষিণ আফ্রিকার সাদা বলের সিরিজ শেষ হয়েছে দুই দিনও হয়নি। এর আগে ঘরের মাঠে নিউজিল্যান্ড ও ভারতের বিপক্ষে খেলেছে ইংল্যান্ড। পুরো মৌসুমেই ঠাসা সূচিতে ব্যস্ত ছিলেন ইংল্যান্ডের ক্রিকেটাররা। তবে শিগগিরই এই ব্যস্ততা শেষ হচ্ছে না।

default-image

‘দ্য হানড্রেড’ শুরু হচ্ছে আজ ৩ আগস্ট থেকে। আর ১৭ আগস্ট থেকে শুরু হবে ইংল্যান্ড–দক্ষিণ আফ্রিকা টেস্ট সিরিজ। বেয়ারস্টো এই সিরিজের প্রস্তুতি নিতে বিশ্রামের সময় হিসেবে বেছে নিলেন ‘দ্য হানড্রেড’কে। এ সময় খেলা থেকে বিরতি থাকবেন ইংলিশ তারকা। বেয়ারস্টো নাম কেটে নিলেও জো রুট, ওলি পোপদের দেখা যাবে ১০০ বলের এই প্রতিযোগিতায়।

বেয়ারস্টো ‘দ্য হানড্রেড’ থেকে নাম কেটে নেওয়া প্রসঙ্গে বলেছেন ‘গত কয়েক মাস ব্যস্ত সূচিতে খেলতে হয়েছে, দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজের আগে আমার সত্যিই বিশ্রাম প্রয়োজন।’

হানড্রেডে বেয়ারস্টোর দল ওয়েলশ ফায়ার তাঁর এই সিদ্ধান্তকে ইতিবাচক চোখেই দেখছে। ওয়েলশ ফায়ার শুভকামনা জানিয়েছে এই ক্রিকেটারকে।

কোচ ব্রেন্ডন ম্যাককালাম ও বেন স্টোকসের নেতৃত্বে ইংল্যান্ড দল টেস্ট ক্রিকেটে ব্যাটিংয়ের ধারা পাল্টে দিয়েছে। স্টোকসদের এই পাল্টে যাওয়ার ধারায় দলের ‘সাইনবোর্ড’ হয়ে উঠেছেন জনি বেয়ারস্টো। অবিশ্বাস্য স্ট্রাইকরেটে শেষ পাঁচ ইনিংসের চারটিতেই হাঁকিয়েছেন শতক। ইংল্যান্ডের এমন আগ্রাসী ক্রিকেট পরিচিতি পেয়েছে ‘বাজবল’নামে।

‘বাজবল’ নিয়ে যখন বিশ্ব ক্রিকেট প্রশংসায় পঞ্চমুখ, তখন এই এই কৌশলের কার্যকারিতা নিয়েই প্রশ্ন তুলেছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার কোচ মার্ক বাউচার। বলেছিলেন সব দল আর সব কন্ডিশনে কাজে লাগবে না ইংল্যান্ডের এই কৌশল। সামনেই যেহেতু দক্ষিণ আফ্রিকা–ইংল্যান্ড টেস্ট সিরিজ, তখনই দেখা যাবে কোন কৌশল কাজে লাগে। বেয়ারস্টোর বিশ্রাম নিয়ে প্রস্তুতি শুরু করাটা হয়তো সে জন্যই।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন