উদ্বোধনে নেমে শামিমা সুলতানা ৭ রান করে আউট হলেও বরাবরের মতো তিন নম্বরে নেমে শুরুর বিপদ সামলে নেন অধিনায়ক নিগার। মুর্শিদা খাতুন (১৫) ও রুমানা আহমেদের (১১) সুযোগ ছিল ম্যাচটা শেষ করে আসার। কিন্তু দুজনই আউট হয়েছেন দুই অঙ্কের ঘরে পৌঁছে। তবে নিগার বাংলাদেশ ইনিংসের সর্বোচ্চ ৩৪ রানের ইনিংস খেলে বাকিদের কাজটা সহজ করে দেন। বাংলাদেশ ইনিংসের ৭ ওভার বাকি থাকতেই জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায়।

ম্যাচ সেরা পারফরম্যান্সটা অবশ্য অভিজ্ঞ অলরাউন্ডার সোহেলী আক্তারের। তাঁর অফ স্পিনের সামনে দাঁড়াতে পারেননি স্কটিশ মেয়েরা। ৪ ওভার বোলিং করে মাত্র ৭ রান দিয়ে ৪ উইকেট শিকার করেছেন সোহেলী। এর মধ্যে দুটিই নিজের স্পেলের শেষ ওভারে। ১৩তম ওভারের তৃতীয় ও চতুর্থ বলে জোড়া আঘাত করে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনাও জাগান তিনি।

৩৪ বছর বয়সী এই ক্রিকেটার দেশের হয়ে সর্বশেষ টি-টোয়েন্টি খেলেছিলেন ২০১৪ সালে। এরপর দীর্ঘ বিরতির পর বিশ্বকাপ বাছাইপর্ব দিয়ে জাতীয় দলে ফিরেছেন। প্রত্যাবর্তনের ম্যাচটা সোহেলী স্মরণীয় করেছেন ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ে। ম্যাচ সেরাও হয়েছেন তিনি।

সোহেলীর বোলিংয়ের সৌজন্যে ভেঙে যায় স্কটল্যান্ডের টপ অর্ডার। সেখান থেকে তাদের আর ঘুরে দাঁড়াতে দেননি সালমা, সানজিদা ও নাহিদারা। বাংলাদেশি স্পিনের বিপক্ষে যেন কোনো জবাবই খুঁজে পাচ্ছিল না স্কটল্যান্ড। মিডল অর্ডার ব্যাটার লর্না জ্যাকের ২২ রানের ইনিংস স্কটিশ ইনিংসে সর্বোচ্চ।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন