পাকিস্তানের বিপক্ষে মেলবোর্নে ৯০ হাজার মানুষের সামনে খেলা বিরাট কোহলির সে ইনিংসের মুগ্ধতার রেশ এখনো কাটেনি। সাবেক থেকে বর্তমান, অনেক ক্রিকেটারই এই ইনিংসের প্রশংসা করেছেন। কোহলি নিজেও তাঁর খেলা ৫৩ বলে ৮২ রানের ইনিংসকেই সেরা মানছেন। ম্যাচ শেষে কোহলি তা নিজেই জানিয়েছেন।

পাকিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচজয়ী ইনিংস খেলার পর নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষেও খেলেছেন ৪৪ বলে ৬২ রানের অপরাজিত ইনিংস। যদিও দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ব্যাট হাতে ব্যর্থ হয়েছেন। ব্যাট হাতে দুর্দান্ত ফর্মের পুরস্কার হিসেবে অক্টোবরের সেরা ক্রিকেটার হওয়ার দৌড়ে আছেন কোহলি। কোহলির সঙ্গে মাস সেরার এ লড়াইয়ে আছেন জিম্বাবুয়ের সিকান্দার রাজা ও দক্ষিণ আফ্রিকার ডেভিড মিলার।

মিলার গত অক্টোবরে ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি মিলিয়ে ম্যাচ খেলেছেন ৭টি। যেখানে আউট হয়েছেন মাত্র ১ বার। অক্টোবরের শুরুতে ভারতের বিপক্ষে ৪৭ বলে করেছিলেন ১০৬ রান। তবে সে ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকাকে জেতাতে পারেননি।

বিশ্বকাপে মিলারের অপরাজিত ৫৯ রানের ইনিংসেই ভারতকে হারায় প্রোটিয়ারা। ওয়ানডে ক্রিকেটেও বিশ্বকাপের আগে হওয়া ভারত সফরে খেলেছিলেন ৭৫ রানের অপরাজিত ইনিংস। সব মিলিয়ে ৭ ইনিংসে মিলার রান করেছেন ৩০৩, গড়টাও ৩০৩। স্ট্রাইক রেট ১৪৬.৩৭।

ছন্দে আছেন সিকান্দার রাজাও। ব্যাট ও বল হাতে কোহলি ও মিলারের সঙ্গে পাল্লা দিয়েই পারফর্ম করেছেন। বিশ্বকাপের প্রথম পর্বে নিজেদের প্রথম ম্যাচে রাজার ৪৭ বলে ৮২ রানের ইনিংসেই আয়ারল্যান্ডকে হারায় জিম্বাবুয়ে।

স্কটল্যান্ডের বিপক্ষে করেন ২৩ বলে ৪০ রান। ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও পাকিস্তানের বিপক্ষে ব্যাট হাতে ভালো করতে না পারলেও বল হাতে এই দুই ম্যাচে নিয়েছেন ৬ উইকেট। বিশ্বকাপে ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছেন তিনবার।

জিম্বাবুয়ের প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে গত আগস্ট মাসের সেরা খেলোয়াড় হয়েছিলেন রাজা। তবে এই মাসের সেরা হতে মিলার ও কোহলির সঙ্গে কঠিন লড়াই করতে হবে রাজাকে।