১৯তম ওভারের দ্বিতীয় বলে কেইন উইলিয়ামসনকে ডিপ ব্যাকওয়ার্ড স্কয়ার লেগে ক্যাচ বানান লিটল। ৩৫ বলে ৬১ রানে আউট হন নিউজিল্যান্ডের এই অধিনায়ক। পরের বলে জিমি নিশামকে ফেলেন এলবডিব্লুর ফাঁদে। নিশাম রিভিউ নিয়েও বাঁচতে পারেননি। ওভারের চতুর্থ বলেও মিচেল স্যান্টনারকে এলবিডব্লিউয়ের ফাঁদে ফেলেন লিটল। স্যান্টনারও রিভিউ নিয়ে বাঁচতে পারেননি। ৪ ওভারে ২২ রানে ৩ উইকেট নেওয়া লিটলই নিউজিল্যান্ডের ইনিংসে আয়ারল্যান্ডের সেরা বোলার। আগে ব্যাট করা নিউজিল্যান্ড ৬ উইকেটে ১৮৫ রান তুলেছে।

ছেলেদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ষষ্ঠ বোলার হিসেবে হ্যাটট্রিক করলেন লিটল। এর আগে বাংলাদেশের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়ার ব্রেট লি (২০০৭), নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে আয়ারল্যান্ডের কার্টিস ক্যাম্ফার (২০২১), দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে ওয়ানিন্দু হাসারাঙ্গা (২০২১), ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দক্ষিণ আফ্রিকার কাগিসো রাবাদা (২০২১) এবং এবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেন কার্তিক মেইয়াপ্পন।

লিটলের হ্যাটট্রিকটি আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ৪০তম হ্যাটট্রিক। আর ছেলেদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে একমাত্র দল হিসেবে দুটি হ্যাটট্রিকের গৌরব অর্জন করল আয়ারল্যান্ড।

পাওয়ার প্লে-র প্রথম ৬ ওভারের মধ্যে নিউজিল্যান্ডকে উড়ন্ত সূচনা এনে দিয়েছিলেন দুই ওপেনার ফিন অ্যালেন ডেভন কনওয়ে। ৫.৫ ওভারে অ্যালেন (১৮ বলে ৩২) আউট হওয়ার সময় কিউইদের স্কোর ছিল ৫২। ২৮ রানে আউট হন কনওয়ে। চতুর্থ উইকেটে ড্যারিল মিচেলের সঙ্গে ৩১ বলে ৬০ রানের জুটি গড়েন উইলিয়ামসন।

২১ বলে ৩১ রানে এক প্রান্তে অপরাজিত ছিলেন মিচেল। তবে কিউই অধিনায়ক উইলিয়ামসনের ইনিংসটাই নিউজিল্যান্ডকে শক্ত ভিতের ওপর দাঁড় করিয়ে দেয়। এই ইনিংসটি খেলার পথে ছেলেদের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিউজিল্যান্ডের হয়ে সবচেয়ে বেশি রানের মালিকও হন উইলিয়ামসন।