নারী দলের নির্বাচক মনজুরুল ইসলাম জানান, অনূর্ধ্ব–১৯ বিশ্বকাপের পারফরম্যান্স বিবেচনায় নিয়েই জাতীয় দলের স্কোয়াড ঘোষণা করা হয়েছে, ‘অনূর্ধ্ব–১৯ দলের অধিনায়ক দিশাসহ দিলারা, স্বর্ণা, মারুফার মারুফারা ভালো খেলছে। ওরা নিউজিল্যান্ড সফরের দলেও ছিল। এ ছাড়া অভিজ্ঞদের নিয়েই দলটি গড়া হয়েছে। কন্ডিশনও বিবেচনায় ছিল।’

এই দল নিয়ে ভালো খেলার আশা অধিনায়ক নিগার সুলতানার, ‘অভিজ্ঞদের সঙ্গে বেশ কয়েকজন প্রতিভাবান ক্রিকেটার আছেন। দল নিয়ে আমি আশাবাদী।’

দলে নেই সর্বশেষ নিউজিল্যান্ড সফরে যাওয়া শারমিন আক্তার, ফারজানা হক, ফারিহা তৃষ্ণা, রাবেয়া ও সানজিদা। ফিরেছেন শামিমা সুলতানা ও সোবহানা মোশতারি।

বাংলাদেশ দল কেপটাউনের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করবে সোমবার। মূল প্রতিযোগিতায় নামার আগে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে নিগারের দল। এ ছাড়া আইসিসি আয়োজিত দুটি ওয়ার্মআপ ম্যাচ আছে পাকিস্তান (৬ ফেব্রুয়ারি) ও ভারতের (৮ ফেব্রুয়ারি) বিপক্ষে।

বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের প্রথম ম্যাচ ১২ ফেব্রুয়ারি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে। ‘এ’ গ্রুপে বাংলাদেশের মেয়েদের অন্য তিন প্রতিপক্ষ অস্ট্রেলিয়া, নিউজিল্যান্ড ও দক্ষিণ আফ্রিকা।

বাংলাদেশ দল

নিগার সুলতানা (অধিনায়ক), মারুফা আক্তার, দিলারা আক্তার, ফাহিমা খাতুন, সালমা খাতুন, জাহানারা আলম, শামিমা সুলতানা, রুমানা আহমেদ, লতা মন্ডল, স্বর্ণা আক্তার, নাহিদা আক্তার, মুরশিদা খাতুন, ঋতু মনি, দিশা বিশ্বাস ও সোবহানা মোশতারি। স্টান্ডবাই: রাবেয়া, সানজিদা আক্তার, ফারজানা হক, শারমিন আক্তার।