বর্তমান গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের সুপার লিগের ছয়টি দল থেকে দুজন করে প্রতিনিধি বিসিবির কাউন্সিলর হতে পারেন। এখন সব ক্লাব থেকেই একজন করে কাউন্সিলর রাখার প্রস্তাব দেওয়া হবে।

বিসিবির এক পরিচালক এবারের এজিএমের ব্যাপারে বলছিলেন, ‘এবারের এজিএমে সবাই আসবে ধরেই প্রস্তুতি নিচ্ছি। কাউন্সিলরদের জন্য সম্মানী থাকবে আর গিফট হিসেবে মোবাইল থাকবে। কেউ যদি কোনো কারণে না আসতে পারে, সে ক্ষেত্রে তাদেরকে জিনিসগুলো পাঠিয়ে দেওয়া হবে নাকি তারা এসে নিয়ে যাবে, সে ব্যাপারে পরে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’

এবারের সভার মূল উদ্দেশ্য বিসিবির গঠনতন্ত্র পরিবর্তনসংক্রান্ত আলোচনা ও সিদ্ধান্ত। ক্লাব পর্যায়ে কাউন্সিলর বাড়ানোর পাশাপাশি বিসিবির গঠনতন্ত্রে আঞ্চলিক ক্রিকেট সংস্থার কাঠামো সংযুক্ত করারও প্রস্তাব থাকবে সভায়।

ক্লাব পর্যায়ে কাউন্সিলরশিপ দেওয়ার নিয়মে পরিবর্তনের প্রস্তাবও আসবে সভায়। বর্তমান গঠনতন্ত্র অনুযায়ী ঢাকা প্রিমিয়ার লিগের সুপার লিগের ছয়টি দল থেকে দুজন করে প্রতিনিধি বিসিবির কাউন্সিলর হতে পারেন। এখন সব ক্লাব থেকেই একজন করে কাউন্সিলর রাখার প্রস্তাব দেওয়া হবে। বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান বলেছিলেন, ঘরোয়া ক্রিকেটে পক্ষপাতমূলক আম্পায়ারিং থামাতেই তাঁদের এ চিন্তা।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন