এ সফর দিয়েই টেস্ট ক্রিকেটে ফিরছে আয়ারল্যান্ড। এ সংস্করণে দুই দলেরও প্রথম দেখা হতে যাচ্ছে এটি। নিজেদের ইতিহাসের তিন টেস্টের সর্বশেষ ম্যাচটি আয়ারল্যান্ড খেলেছিল ২০১৯ সালে, লর্ডসে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে।

সফরের শুরুতে ১৫ মার্চ একটি প্রস্তুতি ম্যাচ খেলবে আয়ারল্যান্ড, যেটির ভেন্যু এখনো চূড়ান্ত হয়নি। ১৮ থেকে ২৩ মার্চের মধ্যে হবে ওয়ানডে সিরিজ, টি-টোয়েন্টি ম্যাচগুলো হবে ২৭ থেকে ৩১ মার্চ। একমাত্র টেস্টটি শুরু হবে ৪ এপ্রিল।

আয়ারল্যান্ডের সিরিজ প্রসঙ্গে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী বলেছেন, ‘ভারত ও ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের পর আয়ারল্যান্ডের সফর হবে আমাদের জন্য আরেকটি রোমাঞ্চকর ইভেন্ট। বিসিবি ও ক্রিকেট আয়ারল্যান্ডের মধ্যে সম্পর্ক সৌহার্দ্যপূর্ণ ও দৃঢ়। ঠাসা আন্তর্জাতিক সূচির মধ্যেও দুই বোর্ড এই সফর আয়োজনে পাশাপাশি থেকে কাজ করে গেছে। আইসিসির ভবিষ্যৎ সফর পরিকল্পনার প্রতি বিসিবির নিবেদনেরও পরিচায়ক এটি।’

অন্যদিকে টেস্ট ক্রিকেটে ফেরা নিয়ে ক্রিকেট আয়ারল্যান্ডের প্রধান নির্বাহী ওয়ারেন ডিউট্রোম বলেছেন, ‘সফরের শেষ ম্যাচটি খেলোয়াড় ও দর্শকদের বাড়তি আগ্রহের কারণে হবে, যেটি দিয়ে আয়ারল্যান্ড টেস্ট ক্রিকেটে ফিরছে। আমাদের দলের জন্য এশিয়ান কন্ডিশনে চ্যালেঞ্জের ব্যাপার হবে। তবে আমাদের খেলোয়াড়দের উন্নয়নে এটি হবে অমূল্য।’

আয়ারল্যান্ডের বাংলাদেশ সফরের সূচি

১৮ মার্চ, প্রথম ওয়ানডে, সিলেট

২০ মার্চ, দ্বিতীয় ওয়ানডে, সিলেট

২৩ মার্চ, তৃতীয় ওয়ানডে, সিলেট

২৭ মার্চ, প্রথম টি-টোয়েন্টি, চট্টগ্রাম

২৯ মার্চ, দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি, চট্টগ্রাম

৩১ মার্চ, তৃতীয় টি-টোয়েন্টি, চট্টগ্রাম

৪-৮ এপ্রিল, একমাত্র টেস্ট, মিরপুর