তবে সাকিবের সন্তুষ্টি হলো, এই দুই ম্যাচেই জিতেছে তাঁর গায়ানা আমাজন ওয়ারিয়র্স। আগে ব্যাট করে ৫ উইকেটে ১৯৪ রান তোলে সেন্ট লুসিয়া। ৫৯ বলে ১০৩ রানের বিধ্বংসী ইনিংস খেলেন সেন্ট লুসিয়া অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসি। তাড়া করতে নেমে রহমানউল্লাহ গুরবাজের ২৬ বলে ৫২, শাই হোপের ৩০ বলে ৫৯* এবং শিমরনের হেটমায়ারের ২৮ বলে ৩৬ রানে ৪ বল হাতে রেখেই ৬ উইকেটের জয় পায় গায়ানা।

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (সিপিএল) খেলতে আগেই ছুটি নিয়েছিলেন সাকিব আল হাসান। তাঁকে ছাড়াই সংযুক্ত আরব আমিরাতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের দল সাজিয়েছে বাংলাদেশ। প্রোটিয়া স্পিনার তাব্রেইজ শামসির বদলি হিসেবে গায়ানায় যোগ দিয়ে গতকালই প্রথম মাঠে নেমেছিলেন সাকিব।

জ্যামাইকা তালাওয়াশের বিপক্ষে জয়ের ম্যাচে যেমন চারে ব্যাট করেছেন, আজও তাই। গুরবাজ নবম ওভারে আউট হওয়ার ব্যাটিংয়ে নামেন। অফ স্পিনার মার্ক ডেয়ালের আর্মার ডেলিভারি ড্রাইভ করতে গিয়ে বোল্ড হন সাকিব। টানা দুই ম্যাচে ‘গোল্ডেন ডাক’ মারায় ব্যাটিং নিয়ে সাকিবের কপালে নিশ্চয়ই চিন্তার ভাঁজই পড়বে!

সেন্ট লুসিয়ার ইনিংসে সাকিব বোলিংয়ে এসেছেন পঞ্চম ওভারে। এক ছক্কা ও চারে ১১ রান দিয়ে শুরু করলেও নিজের দ্বিতীয় ওভারে মাত্র ৭ রান দেন। ইনিংসের ১৫ ও ১৭তম ওভারে গিয়ে পেয়েছেন উইকেটের দেখা। ১৫তম ওভারে অ্যাডাম হোজকে তুলে নেওয়ার পাশাপাশি দিয়েছেন মাত্র ১ রান। পরের ওভারে ১৪ রান দিলেও তুলে নেন ডেভিড ভিসেকে।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন