মোহালিতে হার্শালকে মারা ছক্কাটি ছিল এ বছর স্বীকৃত টি-টোয়েন্টিতে ডেভিডের ৮০তম। আর কোনো ব্যাটসম্যান এ বছর এত ছয় মারেননি। সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি পর্যন্ত তিনি এ বছর খেলেছেন ৫৮টি ম্যাচ, ব্যাটিং করেছেন ৫৫ ইনিংসে। মানে প্রতি ইনিংসে তিনি মেরেছেন ১.৪৫টি করে ছক্কা।

default-image

এ তালিকার দুইয়ে আছেন রোভম্যান পাওয়েল। ২৩ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ৪০ ম্যাচে ৭৪টি ছয় মেরেছেন ক্যারিবীয় এ ব্যাটসম্যান। ইনিংসপ্রতি ছক্কার হিসাবে অবশ্য ডেভিডের চেয়ে বেশ এগিয়ে পাওয়েল, ইনিংসপ্রতি ২টি। এ ক্ষেত্রে ডেভিডের চেয়ে সামান্য এগিয়ে মঈন আলীও। পাকিস্তানের বিপক্ষে দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টি পর্যন্ত ইংল্যান্ড ব্যাটসম্যান ৪৫ ইনিংসে মেরেছেন ৬৮টি ছয়। ইনিংসপ্রতি তাঁর ছয় ১.৫১টি। ২০২২ সালে সর্বোচ্চ ছক্কার সংখ্যায় এরপর আছেন লিয়াম লিভিংস্টোন (৩৯ ইনিংসে ৬৬টি) ও রাইলি রুশো (৩৫ ইনিংসে ৬৩টি)। ইনিংসপ্রতি ছয়ের সংখ্যায় রুশো (১.৮) ও লিভিংস্টোন (১.৬৯)—দুজনই ডেভিডের চেয়ে এগিয়ে।

২০২১ সালে সর্বোচ্চ ছক্কার তালিকার থেকে এবারও এখন পর্যন্ত শীর্ষে পাঁচে জায়গা ধরে রেখেছেন একজনই—লিভিংস্টোন। গত বছর টি-টোয়েন্টিতে ৪০ ইনিংসে ৮৬টি ছক্কা মেরে তালিকার দুইয়ে ছিলেন এ ইংলিশ ব্যাটসম্যান। তালিকায় সবার ওপরে ছিলেন নিউজিল্যান্ডের গ্লেন ফিলিপস, ৫৭ ইনিংসে ৯৭টি ছয় মেরেছিলেন তিনি। তিন ও চারে ছিলেন দুজন ক্যারিবীয়—মাত্র ৩৪ ইনিংসে ৮২টি ছক্কা মেরেছিলেন এভিন লুইস, ৪৫ ইনিংসে ৬৬টি মেরেছিলেন নিকোলাস পুরান। ৪১ ইনিংসে ৬১টি ছক্কা ছিল আরেক কিউই ব্যাটসম্যান গ্লেন ফিলিপসের।

default-image

এ বছর ছক্কা মারার হিসাবে শীর্ষে পাঁচের বাইরে থাকা কয়েকজনও খুব বেশি পিছিয়ে নেই। জস বাটলার (৬২), পল স্টার্লিং (৬২), অ্যালেক্স হেলস (৫৭), ডেভিড মিলার (৫৭) ও নিকোলাস পুরান (৫৭)—সবাই আছেন নিজ নিজ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ দলে। অস্ট্রেলিয়ায় ছক্কার ‘উৎসব’ দেখার আশা করতেই পারেন আপনি!

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বছর বলে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টির হিসাবটাও অবশ্য বলে রাখা দরকার। এ তালিকায় সবার ওপরে আছেন পাপুয়া নিউগিনির টনি উরা, মেরেছেন ৩৯টি ছয়। তবে এবার বিশ্বকাপে নেই পাপুয়া নিউগিনি, উরাকে তাই দেখা যাবে না অস্ট্রেলিয়ায়।

তালিকার দুইয়ে থাকা ভারতের সূর্যকুমার যাদব (৩৭) অবশ্য আছেন আগুনে ফর্মে, বিশ্বকাপেও ভারতের অন্যতম ভরসার নাম হতে যাচ্ছেন তিনি। তিনে আছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের রোভম্যান পাওয়েল (৩৬)। চারে থাকা সংযুক্ত আরব আমিরাতের মুহাম্মদ ওয়াসিমকে (৩৫) অবশ্য দেখা যাবে বিশ্বকাপে।

এ বছর ওয়ানডেতে সবচেয়ে বেশি ছক্কা মেরেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজ অধিনায়ক নিকোলাস পুরান—২৭টি। দুইয়ে থাকা জস বাটলারের ছক্কা ২১টি। জিম্বাবুয়ের সিকান্দার রাজা মেরেছেন ১৭টি ছক্কা, ১৫টি করে মেরেছেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের শামার ব্রুকস ও স্কটল্যান্ডের মাইকেল লিস্ক।

টেস্টে ২০২২ সালে ছক্কা সবচেয়ে বেশি কার, সেটি বোধ হয় অনুমান করে নেওয়া খুব একটা কঠিন নয়। নিজেদের গ্রীষ্মে আক্রমণাত্মক ক্রিকেটকে নতুন রূপ দেওয়া ইংল্যান্ডের দুজন—বেন স্টোকস (২২) ও জনি বেয়ারস্টো (১৮) আছেন শীর্ষে। এরপর আছেন শ্রীলঙ্কার দীনেশ চান্ডিমাল (১৫), ভারতের ঋষভ পন্ত (১৪) ও নিউজিল্যান্ডের ড্যারিল মিচেল (১০)।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন