default-image

পরশু কপিল দেব কোহলিকে ফর্মে ফেরানোর জন্য দরকার হলে বাদ দেওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন, ‘এমন তো না যে বিরাটকে ছাড়া গত পাঁচ বা ছয় বছর ভারত খেলেনি, কিন্তু আমি এমন এক খেলোয়াড়ের ফর্মে ফেরা দেখতে চাই। হ্যাঁ, ওকে হয়তো বিশ্রাম বা বাদ দেওয়া হয়েছে, কিন্তু ওর এখনো অনেক ক্রিকেট দেওয়া বাকি। ওকে এখন এর পথটা খুঁজে নিতে হবে।’

সে পথটা নিজেই বাতলে দিয়েছেন কপিল, ‘হয়তো রঞ্জি ট্রফি খেলুক বা অন্য কোথাও রান করুক। ওর আত্মবিশ্বাস ফেরানো জরুরি। এটাই ভালো ও অসাধারণ ক্রিকেটারের মধ্যকার পার্থক্য। ওর মতো অসাধারণ খেলোয়াড়ের ফর্মে ফিরতে এত সময় নেওয়ার কথা নয়। নিজের জন্য লড়তে হবে ওকে এবং সব গুছিয়ে নিতে হবে। সে এত সময় নিচ্ছে, এটা চিন্তার বিষয়। কারণ, অসাধারণ খেলোয়াড়দের এত সময় লাগে না।’ কপিলের মতোই কোহলিকে বাদ দেওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন পাকিস্তানের সাবেক লেগ স্পিনার মুশতাক আহমেদ।

এদিকে কোহলিকে বাদ দেওয়ার কথা শুনে খেপে উঠেছেন শোয়েব আখতার। নিজের ইউটিউব চ্যানেলে বলেছেন, ‘আমি বিরাট কোহলির অনেক সমালোচনা শুনছি। মানুষ বলে, বিরাট কোহলি শেষ হয়ে গেছে, ওর ক্যারিয়ারে আর দেওয়ার কিছু নেই—একদিক থেকে এগুলো ঠিক। মানুষ আমাকে এটাও বলে যে ক্যারিয়ারে আর কিছু করতে পারবে না সে, এটাও ঠিক। আমি ওদের বলেছি, গত ১০ বছরে কোহলি সেরা খেলোয়াড়। যদি কেউ সেরা হয়ে থাকে, সেটা বিরাট। ওর এক-দুই বছর বাজে যাচ্ছে, সে এর মধ্যেও রান করেছে, শুধু সেঞ্চুরি পায়নি।’

default-image

শোয়েবের ধারণা, কোহলির রানখরা নিয়ে এত আলোচনা, তাঁকে বাদ দেওয়ার কথা বলে ভারতের সাবেক অধিনায়ককে অপমান করা হচ্ছে, ‘আপনারা মিডিয়াতে ওকে অপমান করছেন। ওকে এভাবে অপমান করার কোনো অধিকার আপনাদের নেই। ওকে বাদ দেওয়ার কথা কীভাবে বলেন, আমি জানি না। কপিল দেব আমার বড়, তাঁর অভিমতকে সম্মান করি এবং তাঁর নিজস্ব মত আছে। তিনি কিংবদন্তি, তিনি চাইলে নিজের মত জানাতে পারেন। একজন মহান ক্রিকেটার এভাবেই কথা বলেন। বিরাট কোহলির ৭০টি সেঞ্চুরি আছে এবং শুধু অসাধারণ খেলোয়াড়ই এত রান করতে পারে।’ কোহলিকে সমালোচনাকে পাত্তা না দিয়ে ব্যাটে মনোযোগ দিতে বলেছেন শোয়েব।

এদিকে কোহলিও সমালোচনাকে পাত্তা না দেওয়ার ইঙ্গিত দিয়েছেন। আজ সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি দেয়ালের সামনে বসে তোলা ছবি দিয়েছেন। সমালোচকদের উদ্দেশে তাঁর বার্তাটা দেয়ালে আঁকা ছবিতে লেখা ছিল, ‘যদি পড়ে যাই, আমার কী হবে? কিন্তু প্রিয়, যদি (না পড়ে) উড়তে শুরু করো!’ পোস্টে একটি শব্দও যোগ করে দিয়েছেন, ‘দৃষ্টিভঙ্গি’। অর্থাৎ অনেকে হয়তো ব্যর্থতাকে ভয় পান কিন্তু কোহলি ওড়ার স্বপ্ন দেখেন, ব্যর্থতার ভয়ে কাবু হন না!

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন