অস্ট্রেলিয়ার অন্যতম দর্শনীয় এই স্টেডিয়ামে আজ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সুপার টুয়েলভে বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টায় ভারতের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। এই ম্যাচের আগে কাল সংবাদ সম্মেলনে বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব আল হাসানের কাছে জানতে চাওয়া হয়েছিল সেই ম্যাচের স্মৃতি নিয়ে। সাকিব তা ‘ভালো স্মৃতি’ বললেও স্মৃতিচারণায় একটু ভুল করে বসেন।

সেই ম্যাচে বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড়দের মধ্যে এবার দলে শুধু তিনি আর তাসকিন আছেন, এমন কথা বলেছিলেন, ‘ওই দলের থেকে মনে হয় শুধু আমি আর তাসকিন আছি। অবশ্যই ভালো স্মৃতি। ভালো স্মৃতিগুলো সব সময়ই অনুপ্রেরণা জোগায়। আশা করি সেই স্মৃতি যেন আমাদের মানসিকভাবে একটু সাহায্য করে।’

যে মাঠে জয়ের স্মৃতি আছে, সে মাঠে খেলতে নামলে অতীতের সেই স্মৃতি অবশ্যই আত্মবিশ্বাস হিসেবে কাজ করে। বাংলাদেশ দলকে আজ সেই স্মৃতিতে আত্মবিশ্বাসী করে তোলার দায়িত্ব শুধু সাকিব এবং তাসকিনেরই নয়, আরও একজন আছেন, কাল সংবাদ সম্মেলনে যাঁর নাম বলতে ভুলে গিয়েছিলেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। সৌম্য সরকার!

৭ বছর আগের বিশ্বকাপের সেই ম্যাচে বাংলাদেশ দলে ছিলেন সৌম্যও। এবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সৌম্য রানের মধ্যে না থাকলেও এই মাঠে অতীতের সেই জয়ের অভিজ্ঞতা ছড়িয়ে দিতে পারেন সতীর্থদের মাঝে। অর্থাৎ, অ্যাডিলেড ওভালে বাংলাদেশের সেই জয়ের ম্যাচে তিন খেলোয়াড়কে আজকের ম্যাচে পাচ্ছে বাংলাদেশ—সাকিব আল হাসান, তাসকিন আহমেদ ও সৌম্য সরকার।

সৌম্য সেই ওয়ানডে বিশ্বকাপে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিনে নেমে ৫২ বলে ৪০ রানের কার্যকর এক ইনিংস খেলেছিলেন। সাকিব ব্যাটিংয়ে ভালো করতে পারেননি। ৬ বলে করেছিলেন ২ রান। বল হাতে উইকেট না পেলেও ১০ ওভারে দিয়েছিলেন ৪১ রান। তাসকিন ৫৯ রানে ২ উইকেট নিয়েছিলেন। ফিফটি তুলে নেওয়া জস বাটলার ও জেমস টেলরকে তুলে নেন।

তাসকিন এবার টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে দারুণ বল করছেন। ৩ ম্যাচে তুলে নিয়েছেন ৮ উইকেট। প্রতিপক্ষের ইনিংসের শুরুতে উইকেটও পাচ্ছেন। আজও তাঁর কাছ থেকে এমন প্রত্যাশাই থাকবে। চেনা মাঠে নিশ্চয়ই ভালো করার প্রেরণা পাবেন এই পেসার। পাশাপাশি সাকিব ও সৌম্যকেও জ্বলে উঠতে হবে।