গতকাল অ্যাডিলেডের সেমিফাইনালে ইংল্যান্ডের কাছে ১০ উইকেটে বিধ্বস্ত হয়েছে ভারত। ফেবারিটের তকমা নিয়ে টুর্নামেন্ট শুরু করা ভারত আরও একবার ফিরেছে খালি হাতে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ক্রিকেটের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে বরাবরই সরব থাকেন শোয়েব। ভারত কিংবা পাকিস্তানের খেলা হলে তো কথাই নেই। ভারতের এমন হারের পর কীভাবে চুপ থাকেন ‘রাওয়ালপিন্ডি এক্সপ্রেস’? এমন হার ভারতের প্রাপ্য ছিল বলেই মনে করেন এই গতি তারকা।

এক ভিডিও বার্তায় সাবেক এই ফাস্ট বোলার বলেছেন, ‘ভারতের জন্য লজ্জার একটা দিন। তারা খুবই বাজে খেলেছে। হারটা ভারতের প্রাপ্য ছিল। ভারতের বিপক্ষে ফাইনালে খেলতে চেয়েছিলাম, সেটা আর সম্ভব হলো না।’

এবারের বিশ্বকাপে চোটের কারণে খেলতে পারেননি জশপ্রীত বুমরা। ভুবনেশ্বর কুমার, আর্শদীপ সিং দুজনই পেসের চেয়ে সুইংয়ের ওপর বেশি নির্ভরশীল। দলের সবচেয়ে দ্রুতগতির বোলার মোহাম্মদ শামিও চোট থেকে ফিরেই বিশ্বকাপ খেলেছেন। অস্ট্রেলিয়ার কন্ডিশনে তাই দ্রুতগতির বোলার ছিল না ভারতের হাতে।

কম্বিনেশনের কারণে ভারতীয় টিম ম্যানেজমেন্ট চাহালকেও খেলায়নি। ভারতের এভাবে হারার পেছনে শোয়েব এসব কারণই সামনে আনছেন, ‘ভারতের কাছে দ্রুতগতির কোনো পেসার ছিল না। চাহালকে জানি না কেন খেলানো হয়নি। একাদশ নির্বাচন ঠিক হয়নি। ভারতকে অনেক কিছুই ভাবতে হবে।’

সুনীল গাভাস্কারের মতো শোয়েবও ভারতের নতুন অধিনায়ক হিসেবে হার্দিক পান্ডিয়াকেই ভাবছেন। আইপিএলে নিজের প্রথম মৌসুমে নতুন দল গুজরাট টাইটানসকে চ্যাম্পিয়ন করেছেন হার্দিক পান্ডিয়া। এর পর থেকেই অধিনায়ক হওয়ার আলোচনায় আছেন এই অলরাউন্ডার।