default-image

কার্তিকের এই ঝড়ের পর ওয়েস্ট ইন্ডিজের শুরুটা হয়েছিল ইতিবাচকই। ভুবনেশ্বর কুমারের করা প্রথম ওভারেই ১১ রান তুলে নেন দুই ওপেনার সামারাহ ব্রুকস ও কাইল মেয়ার্স। আর্শদীপের করা দ্বিতীয় ওভারের প্রথম তিন বলে আসে ১১ রান। এমন শুরু করেও ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২০ ওভারে ৮ উইকেটে তুলতে পেরেছে ১২২ রান। প্রথম টি–টোয়েন্টি ম্যাচটি হেরেছে তারা ৬৮ রানে।

ওয়েস্ট ইন্ডিজ যে ইতিবাচক শুরু করেও শেষ পর্যন্ত খেই হারিয়েছে, এতে অবদান ভারতের স্পিনারদের। তিনজন স্পিনার নিয়ে খেলতে নামে রোহিতের দল। অশ্বিন, রবীন্দ্র জাদেজা ও রবি বিষ্ণুই—তিনজন মিলে নিয়েছেন ৫ উইকেট। অশ্বিন ও বিষ্ণুই ২টি করে উইকেট নিয়েছেন, জাদেজা একটি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বাকি যে তিনটি উইকেট পড়েছে, এর দুটি নিয়েছেন আর্শদীপ, একটি ভুবনেশ্বর কুমার। ওয়েস্ট ইন্ডিজের ইনিংসে সর্বোচ্চ ২০ রান করেছেন ব্রুকস।

default-image

এর আগে ভারতকে ভালো শুরু এনে দেন দুই ওপেনার রোহিত ও সূর্যকুমার যাদব। দুজন মিলে ওপেনিং জুটিতে ৪.৪ ওভারে তোলেন ৪৪ রান। সূর্যকুমার ২৪ রান করে আউট হলে ভাঙে জুটি। শ্রেয়াস আইয়ার কোনো রান না করেই আউট হয়েছেন। ঋষভ পন্ত করেছেন ১৪ রান, আর হার্দিক পান্ডিয়ার রান মাত্র ১।

তবে এক প্রান্ত আগলে রেখে রান তুলে গেছেন রোহিত। জেসন হোল্ডারের বলে হেটমায়ারকে ক্যাচ দেওয়ার আগে ৪৪ বলে ৬৪ রান করেছেন রোহিত। মেরেছেন ৭টি চার ও ২টি ছয়। তবে ম্যাচসেরার পুরস্কার জিতেছেন ব্রায়ান লারা স্টেডিয়ামে ঝড় তোলা কার্তিকই।

ক্রিকেট থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন