বিজ্ঞাপন

এরই মধ্যে আরেকটি দুঃসংবাদ তাঁর জন্য অপেক্ষা করছে। কারণ, কোচ পেপ গার্দিওলা ইঙ্গিতে জানিয়ে দিয়েছেন, চেলসির বিপক্ষে ২৯ মের চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে নাও দেখা যেতে পারে আগুয়েরোকে।

আগের মতো সেই ধার নেই, বয়সও ৩২ হয়ে গেছে। সিটির সঙ্গে এক দশক লম্বা সম্পর্কে ইতি টানছেন আগুয়েরো। বাজারে জোর গুঞ্জন, মেসির সঙ্গী হতে বার্সেলোনায় যেতে পারেন আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার। গত এক বছর সিটি–সমর্থকদের সামনে খেলা হচ্ছে না।

default-image

শেষবারের মতো সমর্থকদের ভালোবাসা গায়ে মাখানোর একটা সম্ভাবনা জেগেছে। ইংল্যান্ডে ধীরে ধীরে মাঠে দর্শক ফেরানোর চেষ্টা শুরু হয়েছে। ঘরের মাঠে এ মৌসুমে নিজেদের শেষ ম্যাচে ১০ হাজার দর্শক ঢোকানোর সুযোগ পাচ্ছে সিটি। কিন্তু এভারটনের বিপক্ষে সে ম্যাচে আগুয়েরোর থাকার সম্ভাবনা খুব কম।

ব্রাইটনের বিপক্ষে আজ ম্যাচের আগে গার্দিওলার কথায় সে সুরই শোনা গেছে, ‘ওর হালকা চোট আছে। ওর পায়ে হালকা সমস্যা আছে। নিউক্যাসল ম্যাচের আগে অস্বস্তি লাগছিল ওর। আজ সে পুরোপুরি সুস্থ না। আশা করি, এভারটনের বিপক্ষে খেলার জন্য প্রস্তুত থাকবে।’

লিগ ম্যাচে আগুয়েরোর সামনে বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে আগুয়েরোর চোট। ওদিকে চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে তাঁর মাঠে নামার পথে বাঁধা তাঁর কোচ। জেতার জন্য সেরা একাদশ নামাতে চান গার্দিওলা। আর সে একাদশে আগুয়েরোর থাকার সম্ভাবনা কম বলেই জানিয়েছেন এই স্প্যানিয়ার্ড, ‘যদি সের্হিও সুস্থ থাকে, সে আমাদের সাহায্য করবে, এটা নিশ্চিত। যদি গোল করে সে সাহায্য করতে পারে, তাহলে খেলবে, কিন্তু এটা চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনাল। এ ম্যাচ জেতার জন্য সেরা সম্ভাবনা সৃষ্টি হয়, এমন সিদ্ধান্ত নিতে হবে আমাকে।’

এ মৌসুমে মাত্র ১৮ ম্যাচ খেলেছেন আগুয়েরো। সে ম্যাচগুলোর মাত্র ৮টিতে ছিলেন মূল একাদশে। ১৮ ম্যাচে মাত্র ৪ গোল করা পূর্ণ সুস্থ নন এক স্ট্রাইকারকে চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনালে তাই না নামানোর সম্ভাবনাই বেশি। আগুয়েরো ছাড়া পূর্ণ সুস্থ এক স্কোয়াড পাচ্ছেন না গার্দিওলা।

আগুয়েরোকে বাদ দেওয়ার সিদ্ধান্ত যদি নিয়েও থাকেন, তবু মূল একাদশ সাজাতে বেশ কষ্ট হবে সিটি কোচের, ‘এটা সবচেয়ে কঠিন সময়। এ কারণেই খেলোয়াড় ও কোচের সম্পর্কে একটু ফাঁক থাকা উচিত। কারণ, তাদের ক্যারিয়ার নির্ধারণ সিদ্ধান্ত নিতে হলে তাদের সঙ্গে খুব কাছের সম্পর্ক সৃষ্টি করা যাবে না। মাঝেমধ্যে তাদের সঙ্গে অন্যায় হয়ে যায়, কিন্তু কী করার আছে। আমার কাছে আর কোনো সমাধান নেই। এ কারণেই অনেক বেশি ঘুরিয়ে–ফিরিয়ে খেলায়—এমন এক কোচ পেয়ে ওরা ভাগ্যবান। আমি এখনো নিশ্চিত নই, আমরা কীভাবে খেলব এবং কাদের নিয়ে খেলব। এ কারণে আমি আগামী ১০ থেকে ১১ দিন দেখব এবং এরপর সিদ্ধান্ত নেব।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন