তারিক রায়হান কাজী
তারিক রায়হান কাজীছবি: প্রথম আলো

স্বপ্ন নিয়ে ছুটে আসেন সুদূর ফিনল্যান্ড থেকে। গত ২৭ অক্টোবর যোগ দেন জাতীয় ফুটবল দলের ক্যাম্পে। কয়েক দিন অনুশীলনের পর কপাল পুড়ল তারিক রায়হান কাজীর। আপাতত ছিটকে গেছেন নেপালের বিপক্ষে ১৩ ও ১৭ নভেম্বর ঢাকায় দুটি ফিফা প্রীতি ম্যাচের চূড়ান্ত দলে জায়গা পাওয়ার লড়াই থেকে। কুঁচকির চোটে পড়ায় এখনই পূরণ হচ্ছে না বাংলাদেশ জাতীয় দলের খেলার স্বপ্ন।

বুধবার অনুশীলনে চোট লাগে তাঁর। পুরোনো ব্যথা আবার দেখা দিলে আজ আর বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে অনুশীলনে যাননি ফিনল্যান্ডে জন্ম নেওয়া বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত এই ডিফেন্ডার। হোটেলে বসেই দেওয়া এক ভিডিও বার্তায় ২০ বছর বয়সী তরুণ বলেছেন, ‘দুঃখজনকভাবে আমাকে এখন জাতীয় দলের ক্যাম্প ছাড়তে হচ্ছে। আমি আমার ক্লাব বসুন্ধরা কিংসের ক্যাম্পে ফিরে যাচ্ছি। ধন্যবাদ জানাই জাতীয় দলের কোচ, সকল কোচিং স্টাফ, খেলোয়াড়সহ সবাইকে। জাতীয় দলের ক্যাম্পে আমার দারুণ সময় কেটেছে। আপাতত আমার স্বপ্ন পূরণ হচ্ছে না। তবে শিগগিরই দেখা হবে।’

বিজ্ঞাপন
default-image

ভবিষ্যতে আবার তারিককে ক্যাম্পে ডাকতে চান কোচ জেমি ডে। আজ বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে অনুশীলনের পর তিনি বলেছেন, ‘চোটের কারণে ওকে আমরা আপাতত বিদায় দিচ্ছি। কিছু করার নেই।’ নিশ্চয়ই খুব খারাপ লাগছে? বাংলাদেশ কোচের উত্তর, ‘শুধু তারিক কেন, ক্যাম্পে থাকা আমার খেলোয়াড়দের যে কেউ চোট নিয়ে ছিটকে গেলে আমার একই রকম লাগবে।’ যোগ করেন, এ বছর আর জাতীয় দলে খেলা হচ্ছে না তারিকের। আগামী বছর হয়তো আবার ডাক পাবে, যদি ফিট থাকে।’

default-image

বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপ বাছাইয়ে বাংলাদেশের বাকি চারটি ম্যাচ আগামী বছর হওয়ার কথা। ভারত, আফগানিস্তান ও ওমানের সঙ্গে দেশের মাটিতে খেলা। কাতারের সঙ্গে ম্যাচটি হবে দোহায়। ম্যাচগুলোর ক্যাম্পে আবার দেখা যেতে পারে তারিককে। তবে আপাতত চোটমুক্ত হয়ে খেলবেন বসুন্ধরা কিংসে। করোনায় পরিত্যক্ত মৌসুমে বসুন্ধরার ৬ ম্যাচের ২টিতে খেলার সুযোগ পান ফিনল্যান্ডে অনূর্ধ্ব-১৬ থেকে অনূর্ধ্ব ১৯—এই চার বয়সভিত্তিক দলে খেলা তারিক। এখন তাঁর স্বপ্ন বাংলাদেশ জাতীয় দলের জার্সি গায়ে তোলা।

ফিনল্যান্ড থেকে এবার ঢাকায় এসে প্রথম আলোকে এক সাক্ষাৎকারে তারিক বলেন, ‘ফিনল্যান্ড এখন আমার কাছে অতীত। বর্তমান শুধুই বাংলাদেশ। আমি বাংলাদেশের হয়ে খেলতে চাই। সেই স্বপ্ন নিয়েই এসেছি।’ আপাতত সেই স্বপ্ন পূরণের পথে চোট বাধা হয়ে দাঁড়িয়েছে তাঁর সামনে।

বিজ্ঞাপন
মন্তব্য পড়ুন 0