২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে তাজিকিস্তানে হয়েছিল বাংলাদেশ–আফগানিস্তানের প্রথম লেগের ম্যাচটি।
২০১৯ সালের সেপ্টেম্বরে তাজিকিস্তানে হয়েছিল বাংলাদেশ–আফগানিস্তানের প্রথম লেগের ম্যাচটি।ছবি: এএফপি

ব্যাপারটা অনুমিতই ছিল, আজ নিশ্চিত হওয়া গেল। বিশ্বকাপ ও এশিয়ান কাপের যৌথ বাছাইপর্বের ফিরতি ম্যাচ খেলতে বাংলাদেশে আসবে না আফগানিস্তান। গতকাল রাতে বাংলাদেশ ফুটবল ফেডারেশনকে আনুষ্ঠানিকভাবে সেটি জানিয়ে দিয়েছে তারা। এর ফলে জুনে নিরপেক্ষ ভেন্যুতেই বিশ্বকাপ বাছাইয়ের বাকি তিনটি ম্যাচ খেলতে হবে বাংলাদেশকে। ২৫ মার্চ সিলেটে আফগানিস্তানের বিপক্ষে বাংলাদেশের ‘হোম ম্যাচ’টি অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা ছিল।

ম্যাচটি পিছিয়ে যাওয়ার আগে কম নাটক হয়নি। করোনার অজুহাত দেখিয়ে বাংলাদেশে এসে খেলতে চায় না বলে এএফসিকে জানায় আফগানিস্তান। এএফসি আফগানিস্তানের সঙ্গে বাংলাদেশকে সমঝোতা করার পরামর্শ দিয়েছিল। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আফগানিস্তান তাদের সিদ্ধান্তে অনড় থেকেছে। তারা বাংলাদেশে না এসে ম্যাচ খেলতে চায় নিরপেক্ষ ভেন্যুতে। আজ বাফুফে এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘গতকাল রাতে লিখিতভাবে বাংলাদেশে এসে ম্যাচ খেলতে না পারার বিষয়টি বাফুফেকে অবহিত করেছে আফগানিস্তান ফুটবল ফেডারেশন।’

default-image
বিজ্ঞাপন

তবে বাছাইপর্বের ম্যাচ না হলেও মার্চে বসে থাকতে হচ্ছে না জামাল ভূঁইয়াদের। নেপালে অনুষ্ঠেয় তিন জাতি টুর্নামেন্টে খেলবে বাংলাদেশ। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচটি ঝুলে থাকার জন্যই নেপালকে লিখিত সম্মতি দিতে পারছিল না বাফুফে। এখন আফগানিস্তানের ম্যাচটি আনুষ্ঠানিকভাবে পিছিয়ে যাওয়ায় নেপালে খেলতে যাওয়ার আর বাধা নেই। এরই মধ্যে নেপালে যাওয়ার প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে বাফুফে।

সেখানে স্বাগতিক নেপালের সঙ্গে বাংলাদেশ জাতীয় দল ছাড়া অন্য দলটি কিরগিজস্তান অনূর্ধ্ব-২৩ জাতীয় দল। ২২ থেকে ৩০ মার্চ কাঠমান্ডুতে অনুষ্ঠিত হবে টুর্নামেন্টটি।

নেপালের টুর্নামেন্টকে সামনে রেখে ১০ বা ১১ মার্চ থেকে অনুশীলন ক্যাম্প শুরু করতে চায় বাংলাদেশ। ক্যাম্পে ২৩ ফুটবলার ডাকতে চান বলে জানিয়েছেন জাতীয় দলের প্রধান কোচ জেমি ডে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন