বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

যেমন ধরুন, রিয়াল মাদ্রিদ, জুভেন্টাস ও বার্সেলোনার ওপর উয়েফার সভাপতি আলেক্সান্দর সেফেরিন বেশ ক্ষিপ্ত। ইউরোপিয়ান সুপার লিগ নামের এক বিদ্রোহী লিগ জন্ম দেওয়ার চেষ্টা করায় এই তিন ক্লাব ফুটবল ধ্বংস করে দিতে চায় বলে অভিযোগ করেছেন সেফেরিন। বলেছেন, ফুটবল ও ফুটবলারদের কথা না ভেবে শুধু টাকা উপার্জনই মূল লক্ষ্য এই ক্লাবগুলোর।

কিন্তু উয়েফার বিপক্ষেও পাল্টা অভিযোগ তুলেছেন বেলজিয়াম ও রিয়াল মাদ্রিদ গোলকিপার থিবো কোর্তোয়া।

বিশ্বকাপ ও ইউরোর ব্যস্ততা সত্ত্বেও নেশনস লিগ নামের আরেকটি প্রতিযোগিতার জন্ম দেওয়ায় আগেই বিরক্তি প্রকাশ করেছেন বহু খেলোয়াড়। টনি ক্রুস তো সরাসরি বলেছেন, খেলোয়াড়েরা উয়েফার কাছে ‘জিম্মি’। তাঁর রিয়াল মাদ্রিদ সতীর্থ কোর্তোয়াও সুর চড়া করেছেন।

default-image

নেশনস লিগে তৃতীয় স্থান নির্ধারণী ম্যাচ খেলা নিয়ে ক্ষুব্ধ বেলজিয়ান গোলরক্ষক বলেন, ‘উয়েফা শুধু টাকার চিন্তাই করে। আমাদের সত্য মেনে নেওয়াই ভালো, এটা এখন টাকার খেলায় পরিণত হয়েছে। আমরা এ ম্যাচ খেলছি। কারণ এতে উয়েফা বাড়তি টাকা পাবে। টিভি থেকে আরও বেশি অর্থ যোগ হবে।’

কিন্তু সব খেলোয়াড়ই কি ক্রুস কিংবা কোর্তোয়ার সঙ্গে একমত? রিয়াল মাদ্রিদেরই সাবেক ডাচ মিডফিল্ডার রাফায়েল ফন ডার ভার্ট উল্টো কোর্তোয়ারই সমালোচনা করেছেন।

তাঁর ভাষায়, বেলজিয়ামের এই গোলকিপার ‘ছিঁচকাঁদুনে’ আচরণ করছেন, ‘এসব কথার কোনো মানে হয় না। ছয় মাস বিশ্রাম তো পাচ্ছে। আপনি ক্লাবে খেলেন, ক্লাব আপনাকে প্রচুর টাকা দেয়। হ্যাঁ, অবশ্যই খেলা বেড়েছে। আমরা সবাই এর মধ্য দিয়ে গিয়েছি। প্রতিদ্বন্দ্বিতা যেখানে সবচেয়ে মজার, সেখানে এই খেলোয়াড়দের আচরণ ছিঁচকাঁদুনের মতো।’

ইউরোপের দুই পরাশক্তি ইতালি-বেলজিয়াম ম্যাচ দর্শক টানতে বাধ্য। কোর্তোয়ার এমন ম্যাচ খেলতে ভালো লাগলেও ঠাসা সূচির মধ্যে তৃতীয়স্থান নির্ধারণীর মতো অর্থহীন ম্যাচ খেলায় তিনি বিরক্ত।

এত ঘন ঘন ম্যাচ খেলার কারণে অনেক দলই সেরা একাদশ মাঠে নামাতে পারছে না বলে মনে করেন কোর্তোয়া, ‘সবাই বলবে তারা এ ম্যাচ খেলতে চায়। কিন্তু দুই দলের দিকে পরিবর্তনগুলো (একাদশে) দেখুন। যদি দুই দল ফাইনালে থাকত, তাহলে অন্য অনেকেই থাকত।’ ম্যাচে বেলজিয়ামকে ২-১ গোলে হারিয়েছে ইতালি।

এত বেশি ম্যাচ আয়োজন নিয়ে বিরক্তি গোপন করেননি কোর্তোয়া, ‘জুনে চারটা নেশনস লিগের ম্যাচ আছে। কেন? আগামী বছর আমরা নভেম্বরে বিশ্বকাপ খেলব এবং আমাদের জুনের একদম শেষ পর্যন্ত খেলতে হবে। আমরা চোটে পড়ব। কেউ আর খেলোয়াড়দের নিয়ে ভাবে না এখন। একটা দীর্ঘ মৌসুম শেষে আপনাকে আবার নেশনস লিগে খেলতে হচ্ছে। আর আপনি মাত্র দুই সপ্তাহের ছুটি পাবেন।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন