বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

‘এই মুহূর্তে আমরা পিএসজির সঙ্গে (এমবাপ্পের চুক্তি নবায়ন নিয়ে) কথা বলছি। সবকিছু ভালোভাবেই এগোচ্ছে। গত রাতেই (পিএসজির ক্রীড়া পরিচালক) লিওনার্দোর সঙ্গে আমার কথা হয়েছে, আমরা (চুক্তি নবায়ন নিয়ে) কোনো সমঝোতায় পৌঁছাব কি না। এতটুকু নিশ্চয়তা দিতে পারি, ও (এমবাপ্পে) চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতার জন্য সবকিছুই নিংড়ে দেবে’—ফরাসি দৈনিক লা পারিসিয়েনে সাক্ষাৎকারে বলেছেন এমবাপ্পের মা।

এর আগে গতকাল হঠাৎ বোমা হয়ে আসে লে’কিপে এমবাপ্পের সাক্ষাৎকার। সেখানে জুলাইয়ে পিএসজির ছাড়ার ইচ্ছার কথা ক্লাবকে জানানোর খবর তো দিয়েছেনই, এমবাপ্পে আগস্টে রিয়াল মাদ্রিদে যাওয়ার ইচ্ছার কথাও সরাসরি বলে দিয়েছেন।

এরপর অবশ্য পিএসজি আর রিয়াল মাদ্রিদে লেগে যায়। রিয়াল সভাপতি ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ তখন এল দিবাতে বলেছেন, ‘জানুয়ারিতে এমবাপ্পেকে নিয়ে খবর বলতে পারব। আশা করি ১ জানুয়ারি সবকিছুর সমাধান হয়ে যাবে।’ পিএসজির ক্রীড়া পরিচালক লিওনার্দো আবার সেটির জবাবে তোপ দাগান।

default-image

‘পিএসজি এবং এমবাপ্পের প্রতি অশ্রদ্ধার এটি আরেকটি নমুনা। একই সপ্তাহে রিয়ালের খেলোয়াড় (করিম বেনজেমা), কোচ (কার্লো আনচেলত্তি) ও সভাপতি (ফ্লোরেন্তিনো পেরেজ) কিলিয়ানকে নিয়ে এমনভাবে কথা বললেন যেন সে এরই মধ্যে তাদের খেলোয়াড়। আমি আবারও বলছি, এই অসম্মান আমরা সহ্য করব না’—ফরাসি সংবাদমাধ্যম ‘লেকিপ’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে বলেন লিওনার্দো।

এরপর অবশ্য আজ আবার স্প্যানিশ দৈনিক মার্কার প্রতিবেদন বেরোয়, যেখানে পেরেজ দাবি করেন, এমবাপ্পেকে নিয়ে তাঁর মন্তব্যের ভুল ব্যাখ্যা করা হয়েছে। ‘আমি যেটা বলতে চেয়েছি তা হলো, ওর (এমবাপ্পে) সঙ্গে কথা বলতে আগামী বছর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে আমাদের। পিএসজির প্রতি সব সময়ই আমাদের পূর্ণ শ্রদ্ধা আছে, ওদের সঙ্গে আমাদের সম্পর্ক খুব ভালো’—পেরেজকে উদ্ধৃত করে লিখেছে মার্কা।

default-image

পিএসজির সঙ্গে এমবাপ্পের চুক্তি শেষ হয়ে যাবে এই মৌসুমের শেষে। তবে জানুয়ারি থেকেই তাঁর সঙ্গে দলবদলের ব্যাপারে কথা বলতে পারবে যেকোনো ক্লাব, পিএসজির তাতে কিছু বলার থাকবে না।

এ নিয়ে নাটকের মধ্যে আজ আবার এমবাপ্পের মায়ের সাক্ষাৎকার রিয়াল মাদ্রিদ সমর্থকদের উদ্বেগে ফেলবে নিশ্চিত। শুধু চুক্তি নবায়নের কথাই নয়, এমবাপ্পের মন-মানসিকতা নিয়েও তাঁর মায়ের কথাটা রিয়ালকে ভাবাবে।

ফাইজা লামারি তাঁর ছেলেকে নিয়ে বলছেন, ‘কিলিয়ানের মানসিকভাবে খুশি থাকা জরুরি। ও অখুশি থাকলে আপনাকে সেটা সরাসরি বলে দেবে। (কোনো কিছু মনমতো না হলে) কখনো কখনো এটাও বলে ফেলে “আমি খেলাই ছেড়ে দেব।” আমাদের এমনটা নিয়মিতই বলে (হাসি)। কিলিয়ানের ক্ষেত্রে রাতারাতি যেকোনো কিছু বদলে যেতে পারে।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন