বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

প্রথমবারের মতো জাতীয় দলের ক্যাম্পে ডাক পেয়েছিলেন বাংলাদেশি নাগরিকত্ব পাওয়া কিংসলি। সাফের জন্য কয়েক দিন একসঙ্গে অনুশীলন করেছেন জামাল, কিংসলিরা। সবাই মিলে একসঙ্গে সাফে লড়বেন, এই ছিল প্রত্যাশা। কিন্তু সেটি পূরণ না হওয়ায় পুরো দলের মধ্যেই হতাশা। আজ বিকেলে মালের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়ার আগে বিমানবন্দরে কিংসলির প্রসঙ্গে উঠলে জামাল বলেন, ‘ওর (কিংসলি) জন্য একটু মন খারাপ আছে। কিন্তু এটাই ফুটবল। ও নাম্বার নাইন। আপনি দেখেন আমাদের সামনে যারা খেলে, ওরা সবাই আকারে একই রকম। ও একটু শারীরিকভাবে এগিয়ে। তাই ওকে দলে চেয়েছিলাম।’

সাফে বাংলাদেশ দলের নতুন মুখ মোহাম্মদ হৃদয়। প্রথমবার ডাক পেয়েই চূড়ান্ত দলে জায়গা করে নিয়েছেন তিনি। তা–ও আবার সাফের মতো বড় আসর দিয়ে। প্রথম আলোকে তিনি বলেন, ‘বয়সভিত্তিক জাতীয় দলে খেলার সময় থেকেই মূল জাতীয় দলে খেলার স্বপ্ন দেখি। সেটি পূরণ হলো সাফ দিয়ে। সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ অনেক বড় টুর্নামেন্ট। এটি দিয়ে জাতীয় দলে খেলার স্বপ্ন পূরণ হতে যাওয়ায় বেশি ভালো লাগছে।’

default-image

২০১৫ সালে সিলেটে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব-১৬ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে শিরোপা জেতা বাংলাদেশ দলের খেলোয়াড় ছিলেন মোহাম্মদ হৃদয়। কিশোর দলের হয়ে আছে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার অভিজ্ঞতা, আর যুব দলের হয়ে আছে রানার্সআপ হওয়ার স্মৃতি। অনূর্ধ্ব-১৬ সাফ জেতার পর ২০১৯ সালে নেপালে অনুষ্ঠিত অনূর্ধ্ব-১৮ সাফে রানার্সআপ বাংলাদেশের জার্সিতেও খেলেছেন তিনি। এবার জাতীয় দলে জায়গা করে নিয়ে বড়দের সাফ চ্যাম্পিয়নশিপ খেলারও দ্বারপ্রান্তে ১৯ বছর বয়সী এই মিডফিল্ডার।

১ অক্টোবর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে সাফ মিশন শুরু করবে বাংলাদেশ। ৪,৭ ও ১৩ অক্টোবর যথাক্রমে জামাল ভূঁইয়াদের প্রতিপক্ষ ভারত, মালদ্বীপ ও নেপাল। রাউন্ড রবিন লিগ পদ্ধতিতে সর্বোচ্চ পয়েন্ট পাওয়া দুটি দল ফাইনালে খেলবে ১৬ অক্টোবর।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন