গ্রিজমানকে বিক্রি করে দেওয়ার পরামর্শ বার্সেলোনাকে দিয়েছেন রিস্তো স্তয়চকভ।
গ্রিজমানকে বিক্রি করে দেওয়ার পরামর্শ বার্সেলোনাকে দিয়েছেন রিস্তো স্তয়চকভ। ছবি: রয়টার্স

আতলেতিকো মাদ্রিদে তিনি ভালোই ছিলেন। দারুণ ছন্দময় ফুটবল খেলে কেড়ে নিয়েছিলেন আতলেতিকোর সমর্থকদের মন। কিন্তু ২০১৯ সালে বার্সেলোনাতে নাম লেখানোর পর থেকেই আঁতোয়ান গ্রিজমানের সময় কাটছে ভালো–মন্দ মিলিয়ে। পারফরম্যান্সে আগের সেই ছন্দ আর নেই। এক ম্যাচে আলো ছড়ান তো পরের দুই ম্যাচে তাঁকে খুঁজেই পাওয়া যায় না। বার্সেলোনায় দুই বছরে গ্রিজমানকে সমালোচনাই সইতে হয়েছে বেশি।

এই ভালো এই মন্দ পারফরম্যান্সের কারণে তো মাঝেমধ্যেই গ্রিজমানের ঠিকানা হচ্ছে বেঞ্চ। তবে চ্যাম্পিয়নস লিগে পিএসজির বিপক্ষে শেষ ষোলোর দ্বিতীয় লেগের ম্যাচে তাঁকে আবার শুরুর একাদশে খেলিয়েছেন বার্সার নতুন কোচ রোনাল্ড কোমান। কিন্তু এ ম্যাচেও ফরাসি স্ট্রাইকার ছিলেন নিষ্প্রভ। প্যারিসের সেই ম্যাচে পিএসজির সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করে বার্সেলোনা। বার্সাকে সমতায় ফেরানো গোলটি করেছেন লিওনেলে মেসি। তবে মেসির দুর্দান্ত সেই গোলের পরও দুই লেগের ফল মিলিয়ে শেষ আটে উঠতে ব্যর্থ হয়েছে বার্সা।

বিজ্ঞাপন
default-image

চ্যাম্পিয়নস লিগের ওই ম্যাচের পর গ্রিজমানের ওপর একটু বিরক্তই হয়েছেন বার্সেলোনার সাবেক স্ট্রাইকার রিস্তো স্তয়চকভ। বাংলাদেশের গ্রামাঞ্চলে বড়দের কোনো খেলায় খেলাটা কম পারা কোনো শিশুকে দলে নিয়ে তাকে বলা হয় ‘দুধভাত’। বার্সেলোনা দলে গ্রিজমানকে এখন সে রকম চোখেই দেখছেন স্তয়চকভ, ‘গ্রিজমান যখন মাঠে থাকে, বার্সেলোনা আসলে ১০ জন নিয়ে খেলে!’

গ্রিজমান বার্সেলোনায় আসার পর শুরুর দিকে মেসির সঙ্গে জুটি গড়ে তুলতে পারেননি। সেই সময় গ্রিজমানের ভক্তদের অনেকেই বলতেন, মেসিই আসলে গ্রিজমানকে আপন করে নিতে পারেননি! অনেকে আবার বলতেন, মেসির সঙ্গে দ্বন্দ্ব আছে গ্রিজমানের। বার্সেলোনায় গ্রিজমানের প্রথম মৌসুমটা এভাবেই কেটেছে। গত মৌসুমের শেষের দিক থেকে শুরু করে চলতি সেই সব আলোচনা আড়ালে চলে গেছে দল হিসেবে বার্সার মাঠের ব্যর্থতা আর মেসির ব্যুরোফ্যাক্স পাঠানোর ঘটনায়।

default-image

এখন কাতালান ক্লাবটিতে বেশি কথা হচ্ছে মেসির ভবিষ্যৎ নিয়ে। বার্সার সঙ্গে আর্জেন্টাইন তারকার চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়ে যাবে জুনে। নতুন চুক্তি নিয়ে এখনো আলোচনাই শুরু হয়নি। মেসি কি তাহলে থাকবেন বার্সেলোনায়? শেষ পর্যন্ত মেসি যদি অন্য কোথাও চলেই যান তাহলে তাঁর বিকল্প হিসেবে কাকে নেবে বার্সেলোনা? মেসি চলে গেলে কি তাঁর ছায়া থেকে বেরিয়ে এসে গ্রিজমান ভালো কিছু করতে পারবেন? এসব আলোচনার মধ্যেই ভালো একজন স্ট্রাইকার দলে ভেড়ানোর কথাও ভাবছে বার্সেলোনা।

এ ক্ষেত্রে বার্সেলোনাকে আগ বাড়িয়েই একটি পরামর্শ দিয়ে রাখলেন স্তয়চকভ, ‘বার্সেলোনা যতি লম্বা সময়ের জন্য কিছু করতে চায়, তাহলে তাকে (গ্রিজমান) বিক্রি করে দেওয়াই ভালো। ত্রিনকাও আর ব্রাফেটকে নিয়মিত মাঠে নামানো উচিত। আর গ্রিজমান এখানে করছেটাই–বা কী?

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন