মিসর নারী জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ফাইজা হেইদার। ছেলেদের ক্লাবের কোচের দায়িত্ব নিয়েছেন
মিসর নারী জাতীয় দলের সাবেক অধিনায়ক ফাইজা হেইদার। ছেলেদের ক্লাবের কোচের দায়িত্ব নিয়েছেনছবি: রয়টার্স

ফুটবলে ফাইজা হেইদার হাতে খড়ি মিসরের রাস্তায়। বড় হয়েছেন ছেলেদের সঙ্গে খেলে। আরও বড় হয়ে হাল ধরেছেন মিসর নারী দলের। ছিলেন নারী জাতীয় দলের অধিনায়ক। আর গড়লেন অনন্য ইতিহাস। মিসরের ইতিহাসে প্রথম নারী হিসেবে ছেলেদের পেশাদার ক্লাবের কোচের দায়িত্ব নিয়েছেন ফাইজা হেইদার।

বিজ্ঞাপন
default-image

মিসরের গিজা অঞ্চলের ক্লাব আইডিয়াল গোলডির দায়িত্ব নিয়েছেন তিনি। দেশটির ফুটবলে চতুর্থ বিভাগে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে থাকে আইডিয়াল গোলডি। ৩৬ বছর বয়সী সাবেক এ ফুটবলার সংবাদ সংস্থা রয়টার্সকে বলেন, ‘শুরুতে সবাই ঠাট্টা-মশকরা করেছে। কিন্তু পরে টের পেয়েছে (আমার কাছ থেকে), কিছু শিখতে পারবে। দক্ষতা বাড়াতে পারবে।’

ফাইজা প্রস্তুতি নিয়েই এসেছেন ফুটবলের কোচিং দুনিয়ায়। মিসরের পুরুষ ও নারী কোচদের মধ্যে ফাইজাই প্রথম—যিনি ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের কাছ থেকে ‘প্রিমিয়ার স্কিলস কোচ এডুকেটর’ মর্যাদা পেয়েছেন। যদিও মিসরীয় ফুটবলে ছেলেদের আধিপত্যই বেশি। দেশটিতে মেয়েদের লিগ শুরু হয় ২০০০ সালে।

বিজ্ঞাপন
default-image

শৈশব থেকেই ফুটবলের প্রতি টান ছিল ফাইজার। খেলার পথে বাধাও পেয়েছেন তিনি। সেটি পরিবার থেকে। ফাইজার মা খোদ্রা আবদেলরহমান জানালেন, ‘আমি তাকে যেতে নিষেধ করতাম। কিন্তু সে বলত “না, আমি যাব”—সে খেলাটা ভালোবাসত। তাকে যেতে দিয়ে সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করেছি, সে এগিয়ে গেছে এবং এখন ভালো করছে।’

মন্তব্য পড়ুন 0