জাতীয় দলের ক্যাম্পে যোগ দিয়েছেন বাংলাদেশের ফুটবলাররা।
জাতীয় দলের ক্যাম্পে যোগ দিয়েছেন বাংলাদেশের ফুটবলাররা।ছবি: প্রথম আলো

২৩ থেকে ২৯ মার্চ নেপালে হবে ত্রিদেশীয় ফুটবল টুর্নামেন্ট। সেই টুর্নামেন্টে তিন দলের একটি হিসেবে অংশ নিচ্ছে বাংলাদেশও। সেটিকে সামনে রেখে আজ শুরু হয়েছে জাতীয় ফুটবল দলের ক্যাম্প। ডাক পাওয়া ২৪ খেলোয়াড়ের মধ্যে ক্যাম্পে যোগ দেননি চারজন। কলকাতা মোহামেডানের হয়ে খেলার জন্য কলকাতায় থাকায় স্বাভাবিকভাবে যোগ দিতে পারেননি নিয়মিত অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া। তিনি ছাড়াও ব্যক্তিগত কারণে ক্যাম্পে যোগ দেননি আশরাফুল ইসলাম, মোহাম্মদ আবদুল্লাহ ও আনিসুর রহমান। এই তিনজনেরই আগামীকাল ক্যাম্পে যোগ দেওয়ার কথা রয়েছে।

টুর্নামেন্টে স্বাগতিক নেপাল ও বাংলাদেশ জাতীয় দলের সঙ্গে অন্য দলটি কিরগিজস্তান অনূর্ধ্ব–২৩। ১৮ মার্চ কাঠমান্ডুর উদ্দেশে ঢাকা ছাড়বে বাংলাদেশ। এর আগে অনুশীলনের জন্য সময় পাওয়া যাচ্ছে মাত্র কয়েক দিন। অল্প এ সময়ে পুরোনো ও নতুন খেলোয়াড়দের মধ্যে বোঝাপড়ার দিকে নজর দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন জাতীয় দলের কোচ জেমি ডে। ইংলিশ এই কোচ বলেন, ‘অনুশীলনে লক্ষ্য থাকবে পুরোনোর সঙ্গে নতুন খেলোয়াড়দের সমন্বয় তৈরি করা।’

বিজ্ঞাপন
default-image

নেপাল সফরের জন্য জাতীয় দলে নতুন মুখ পাঁচটি। এ ছাড়া অনুশীলনে সুযোগ দেওয়ার জন্য অতিরিক্ত খেলোয়াড় হিসেবে ক্যাম্পে রাখা হয়েছে তরুণ সাতজনকে। জাতীয় দলে তাঁরা নতুন হলেও, ক্লাবে খেলার সুবাদে একে অপরের সম্পর্কে ভালোই জানেন। তাই সমন্বয় তৈরি করার কাজটি কঠিন হবে না বলে মনে করেন অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার রহমত মিয়া। সাইফ স্পোর্টিং ক্লাবের এই ডিফেন্ডার বলেন, ‘ক্লাবে খেলার সুবাদে আমরা সবাই সবাইকে চিনি। কে কীভাবে খেলে, তা জানি। নতুন অনেকে এসেছে। তারা নিজেদের প্রমাণ করেই জায়গা করে নিয়েছে। ফুটবল একটা দলীয় খেলা। চাপটা সবার মধ্যেই ভাগ করে নেব।’

ক্যাম্পে ডাক পাওয়া নতুন চারজনের একজন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ ক্রীড়াচক্রের ডিফেন্ডার মেহেদী হাসান। কুড়িগ্রাম থেকে কাল রাতে রওনা হয়ে আজ সকালে ঢাকা পৌঁছেছেন মুক্তিযোদ্ধার ডিফেন্ডার মেহেদী। প্রায় ১২ ঘণ্টার ভ্রমণ শেষে সকালে ঢাকায় পৌঁছে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে করোনা পরীক্ষা করিয়ে ক্যাম্পে উঠেছেন তিনি। লম্বা ভ্রমণ শেষেও চোখেমুখে ক্লান্তির ছাপ নেই। রঙিন স্বপ্নের কথা শোনালেন মেহেদী, ‘অনেক স্বপ্ন নিয়ে জাতীয় দলের ক্যাম্পে এসেছি। এখন পরিশ্রম করে তা পূরণ করতে হবে।’

default-image

নতুনদের মধ্যে অভিজ্ঞ হাবীবুর রহমান। ক্যারিয়ারের শেষ প্রান্তে এসে জাতীয় দলে ডাক পেয়েছেন মোহামেডান স্পোর্টিংয়ের ২৮ বছর বয়সী এই ডিফেন্ডার। জাতীয় দলের জার্সি গায়ে জড়িয়ে জাতীয় দলের ক্যাম্পে যোগ দেওয়ার রোমাঞ্চের কথা শোনালেন মোহামেডানের ডিফেন্ডার হাবীবুর, ‘সব বয়সভিত্তিক জাতীয় দলেই আমি খেলেছি। কিন্তু মূল জাতীয় দলের ক্যাম্পে ওঠার রোমাঞ্চটাই অন্য রকম।’

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন