বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

লা মাসিয়া ৪-৩-৩ ছকে খেলে অভ্যস্ত, ওদিকে জাভি যখন বার্সায় খেলতেন, দলটা নিয়মিত ৪-৩-৩ ছকেই খেলত। সে হিসেবে বলা যেতে পারে জাভি ওই ধারার ব্যত্যয় ঘটাবেন না। দলের বেশ কিছু খেলোয়াড়দের চোটসমস্যার কারণে সেরকম বাছাই প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে হয়তো যেতে হবে না জাভিকে। মূল গোলকিপার মার্ক আন্দ্রে টের স্টেগেন সুস্থ আছেন, স্বাভাবিকভাবেই খেলছেন তিনি। দুই রাইটব্যাক সের্হিনিও দেস্ত আর দানি আলভেজের দুই সমস্যা, দেস্ত যেখানে পিঠের সমস্যার কারণে খেলতে পারবেন না, লিগের নিয়মের কারণে দানি আলভেজ জানুয়ারির আগে বার্সার হয়ে মাঠে নামতে পারবেন না।

তাই রাইটব্যাক হিসেবে আজ হয়তো সের্হি রবের্তোকেই দেখা যাবে। দুই সেন্টারব্যাক হিসেবে জাভির পুরোনো সঙ্গী জেরার্ড পিকে ও দলে এই মৌসুমে আসা সেন্টারব্যাক এরিক গার্সিয়া জুটি বাঁধতে পারেন, কারণ অন্যান্য সেন্টারব্যাকদের তুলনায় এই দুজনের বল পায়ে রেখে আস্তে আস্তে আক্রমণে গড়ে তোলার স্বভাব আছে। লেফটব্যাক হিসেবে যথারীতি থাকবেন জাভির আরেক সাবেক সতীর্থ জর্দি আলবা।

default-image

সের্হিও বুসকেতস ও ফ্রেঙ্কি ডি ইয়ংয়ের খেলাও মোটামুটি নিশ্চিতই বলা চলে। ওদিকে পেদ্রি যেহেতু পেশির চোটে আক্রান্ত, সে জায়গায় আরেক তরুণ নিকো গঞ্জালেসকে দেখা যেতে পারে। আনসু ফাতি থেকে শুরু করে মার্টিন ব্রাথওয়াইট, ওসমানে দেম্বেলে—আক্রমণভাগের বেশ কিছু তারকা চোটে আক্রান্ত। যে কারণে মূল স্ট্রাইকার মেম্ফিস ডিপাইয়ের সঙ্গে সুযোগ পেতে পারেন ফিলিপ কুতিনিও ও গাভি।

তবে ম্যাচের আগে জাভির কথা শুনলে কিন্তু মনে হবে না, বার্সার মূল একাদশ একেবারেই চমকহীন হবে।

default-image

ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে সবাইকে চমকে দেওয়ার ইচ্ছে প্রকাশ করেছেন এই স্প্যানিশ কোচ, ‘তরুণ খেলোয়াড়দের নিয়ে আমার অনেক আশা। আমাদের আনসু, মার্টিন আর কুন নেই, হয়তো তরুণ খেলোয়াড়দের সুযোগ দিতে হবে। তরুণরাও প্রস্তুত। দেখা যাক কে খেলে, আমি এখনও একাদশ নিয়ে সিদ্ধান্ত নিইনি, অনুশীলনের ওপর নির্ভর করে দেখা যাবে কে কে খেলবে। হয়তো কিছু চমকও থাকবে একাদশে। দেখা যাক, আজকের অনুশীলনে কি হয়।’

সে অনুশীলনে এর মধ্যেই করিয়ে ফেলেছেন জাভি। চমকের আশা এখনও তাঁড় মনে আছে কি না, কে জানে!

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন