চাকরি কি হারানোর পথে জিদান?
চাকরি কি হারানোর পথে জিদান?ছবি: রয়টার্স

কী এক দুঃসময়ই না যাচ্ছে রিয়াল মাদ্রিদ আর জিনেদিন জিদানের। লা লিগায় কদিন পরপরই ম্যাচ হারছে বা ড্র করছে জিদানের রিয়াল। পয়েন্ট তালিকায় দুই নম্বরে থাকলেও অবস্থানটা খুব বেশি পোক্ত নয় তাদের। ১৮ ম্যাচ খেলে পয়েন্ট ৩৭ পয়েন্ট রিয়ালের। দুই ম্যাচ কম খেলে শীর্ষে থাকা অ্যাথলেটিক মাদ্রিদের পয়েন্ট ৪১। এর মধ্যেই কিনা আরেকটি বড় ধাক্কা খেলেন জিদান। গত পরশু তাঁর দল অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের কাছে হেরে ছিটকে পড়েছে স্প্যানিশ সুপার কাপ থেকে।

এই হারের পর তো জিদানের বার্নাব্যু-ভবিষ্যৎ নিয়েই শঙ্কা জেগেছে! কেউ বলছেন, এবার আর শেষরক্ষা হচ্ছে না জিদানের, চাকরিটা বুঝি গেল! এমন গুঞ্জনের স্রোত দেখে স্পেনের ক্রীড়া দৈনিক মার্কা একটি জরিপ করেছে অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের কাছে রিয়ালের হেরে যাওয়ার পর।

বিজ্ঞাপন

জরিপের বিষয় ছিল, রিয়ালে জিদানের কী ভবিষ্যৎ দেখেন দলটির সমর্থকেরা। সেই জরিপের ফল বলছে, রিয়ালের সমর্থকেরা বার্নাব্যুতে জিদানের শেষ দেখছেন শিগগিরই। জরিপে রিয়াল মাদ্রিদের পারফরম্যান্স নিয়ে প্রশ্ন ছিল। জরিপে অংশ নেওয়া সবাই অবশ্য রিয়ালের এমন রোলার-কোস্টার পারফরম্যান্সের পেছনে শুধুই জিদানের দোষ দেখছেন না, কেউ কেউ দলের খেলোয়াড়দের সক্ষমতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন।

মার্কার জরিপের প্রথম প্রশ্নটি ছিল এ রকম, স্প্যানিশ সুপার কাপ থেকে দলের ছিটকে পড়ার কারণটা কী মনে করেন সমর্থকেরা। এই প্রশ্নে ২৮ শতাংশ উত্তরদাতা দায় দিচ্ছেন জিদানকে। তাঁরা মনে করেন, এবার জিদান দলে যে পরিবর্তন এনেছেন, সেটাই এমন হারের কারণ। তবে ৩০ শতাংশ উত্তরদাতা মনে করেন, বিলবাওয়ের কাছে হারের কারণ একটাই—খেলোয়াড়দের বাজে পারফরম্যান্স। তাঁরা নিজেদের সেরা খেলাটা খেলতে পারেননি। বা বিলবাওয়ের বিপক্ষে জয়ের জন্য যেমন খেলা উচিত ছিল, তাঁরা সেটা পারেননি।

default-image

জরিপের দ্বিতীয় প্রশ্নটি ছিল, বিলবাওয়ের বিপক্ষে এই হারে সবচেয়ে বাজে পারফরম্যান্স কার ছিল। এটা মাঠ ও ডাগআউট মিলিয়ে উত্তর দিতে বলা হয়েছিল। এই প্রশ্নে অনেক এগিয়ে থেকে ‘জয়’ পেয়েছেন জিদান। উত্তরদাতা রিয়ালের ৫৩ শতাংশ সমর্থকই মনে করেন, জিদানের কারণেই দল হেরেছে।

জরিপের তৃতীয় প্রশ্ন, এই ম্যাচে এমন কাকে তাঁরা মিস করেছেন, রিয়াল কোচ জিদান যাঁকে খেলাননি। ৪০ শতাংশ উত্তরদাতাই মার্টিন ওডেগার্ডের কথা বলেছেন। তবে অনেকেই আবার কাউকে মিস করেননি বলে উল্লেখ করেছেন।

বিলবাওয়ের ম্যাচটি ছিল এ মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে রিয়ালের ২৫তম। এই ২৫ ম্যাচের মধ্যে মাত্র ১৪টিতে জিতেছে রিয়াল, হেরেছে ৬ ম্যাচে, ড্র করেছে ৫টি। কোচ জিদানের রিপোর্ট কার্ডটা খুব যে ভালো নয়, তা অনুমান করাই যায়। এখন রিয়ালের সমর্থকেরাও শেষ দেখছেন, দলটিকে তিনটি চ্যাম্পিয়নস লিগ ও দুটি লা লিগাসহ ছোট-বড় ১১টি শিরোপা জেতানো কোচের! কে জানে, শেষ পর্যন্ত কী হয়!

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন