বিজ্ঞাপন

সাদাচোখে, জিদানের চেয়ে কোমানের থাকার দাবি জোরাল। শেষ দিন পর্যন্ত আতলেতিকোর সঙ্গে শিরোপার লড়াইয়ে থাকলেও জিদানের রিয়াল এই মৌসুমে কোনো শিরোপা জেতেনি, ২০০৮-০৯ মৌসুমের পর এই প্রথম। ক্লাবের পালাবদলের সময়ে যোগ দিয়ে কোমান অন্তত বার্সাকে একটা ট্রফি জিতিয়েছেন—কোপা দেল রে।

কিন্তু বার্সার ফুটবলে এবার প্রাণ সেভাবে ছিল না। কোমান যে কোচিং ট্যাকটিকস বা কৌশলের দিক থেকে উঁচুমানের কোচদের মধ্যে পড়েন না, তা নিয়েও বিতর্ক তেমন নেই বার্সার বোর্ডে। মৌসুমজুড়ে রিয়াল, আতলেতিকো, পিএসজির মতো বড় দলগুলোর বিপক্ষে জিততে পারেনি বার্সা, সেটিও কোমানের গ্রহণযোগ্যতা কমিয়েছে। বার্সা হোঁচট খেয়েছে লিগের শেষ দিকে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠা ম্যাচগুলোতেও।

বার্সার নবনির্বাচিত সভাপতি হোয়ান লাপোর্তা এর মধ্যে কদিন আগে জানিয়ে দিয়েছেন, আগামী মৌসুমে ক্লাবে অনেক বদল ঘটতে যাচ্ছে! সেটি স্কোয়াডে যে হচ্ছে, তা নিশ্চিত। বুসকেতস, রবার্তো, পিয়ানিচ, এমনকি ভালো প্রস্তাব পেলে গ্রিজমানকেও বেচে দেওয়ার পরিকল্পনা লাপোর্তার, এমনটাই জানাচ্ছে মার্কা-এএসের মতো স্প্যানিশ পত্রিকাগুলো। ইউরোপে গুঞ্জন, দেম্বেলেকে কম বেতনে চুক্তি নবায়নের প্রস্তাব দেবে বার্সা, তাতে রাজি না হলে সে ক্ষেত্রে ভালো দাম পাওয়া সাপেক্ষে তাঁকেও বিক্রি করে দিতে পারেন লাপোর্তা!

এ তো গেল খেলোয়াড় তালিকায় বদলের কথা, কিন্তু ডাগআউটে কোমান থাকবেন? দিন চারেক আগে কোমানের সঙ্গে মধ্যাহ্নভোজে কথা বলেছেন লাপোর্তা। কী বলেছেন তা জানা যায়নি। তবে গতকাল লিগের শেষ ম্যাচের আগের সংবাদ সম্মেলনে কোমানের উষ্মা প্রকাশ ইঙ্গিত দেয়, আলোচনাটা ডাচ কোচের পছন্দ হয়নি।

default-image

তবে বার্সেলোনাভিত্তিক স্প্যানিশ দৈনিক স্পোর্ত জানাচ্ছে, কোমানের বার্সায় থাকা না থাকা নির্ভর করবে দুটি বিষয়ের ওপর। এক কোমানের বিকল্প হিসেবে ভালো কোনো কোচকে পাওয়া যায় কি না। এখন পর্যন্ত কোমানের বিকল্প হিসেবে বার্সার কিংবদন্তি মিডফিল্ডার জাভি হার্নান্দেজ, বার্সার ‘বি’ দলের কোচ গার্সিয়া পিমিয়েন্তা আর বায়ার্ন মিউনিখ থেকে মৌসুম শেষে বিদায় নিতে চাওয়া কোচ হান্সি ফ্লিকের কথা বার্সা ভাবছে বলে শোনা গিয়েছিল।

কিন্তু স্পোর্তের খবর, ফ্লিক জার্মানি জাতীয় দলের কোচ হতে চান। বর্তমানে কাতারের ক্লাব আল-সাদের কোচ জাভির সঙ্গে যোগাযোগ করলেও তাঁকে কোচ করার ব্যাপারে পুরোপুরি নিশ্চিত নয় লাপোর্তার বোর্ড। আর পিমিয়েন্তা এই পর্যায়ে কোচিংয়ে কী করতে পারবেন তা নিয়ে সংশয় আছে।

কোমানকে বরখাস্ত করার আগে আরেকটি বিষয় বিবেচনা করবেন লাপোর্তা, এমনটাই জানাচ্ছে স্পোর্ত। সেটি হচ্ছে, চুক্তির এক বছর বাকি থাকা অবস্থায় কোমানকে বরখাস্ত করতে গেলে ক্ষতিপূরণ হিসেবে সাড়ে ৭ মিলিয়ন বা ৭৫ লাখ ইউরো দিতে হবে। বাংলাদেশি মুদ্রায় প্রায় ৭৮ কোটি! দেনার দায়ে জেরবার বার্সার জন্য খরচটা কপালে ভাঁজ ফেলার মতোই।

এ তো গেল বার্সার দিক, ছাঁটাই হলে কোমান কোথায় যাবেন? বার্সাকে ১৯৯২ চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতানো গোলটি করা সাবেক ডিফেন্ডারের জন্য দুঃসংবাদ, এখন পর্যন্ত ইউরোপের বড় কোনো দলের সঙ্গে তাঁর নাম জড়িয়ে সেভাবে গুঞ্জন শোনা যায়নি।

default-image

রিয়াল ছেড়ে চলে গেলে জিদানকে এ নিয়ে ভাবতে হয়তো হবে না। খেলোয়াড়ি জীবনে রিয়াল মাদ্রিদের আগে যে ক্লাবে খেলেছেন, সেই জুভেন্টাস তাঁকে চায় বলে গুঞ্জন। বর্তমান কোচ আন্দ্রেয়া পিরলো মৌসুমে তেমন ভালো করতে পারেননি, তাঁর সঙ্গে গাঁটছড়া হয়তো ছিন্ন করতে যাচ্ছে জুভ। সে ক্ষেত্রে জিদানই হতে পারেন জুভেন্টাসের প্রথম পছন্দের কোচদের একজন। কদিন আগে জোসে মরিনিওকে বরখাস্ত করা ইংলিশ ক্লাব টটেনহামও জিদানকে চায় বলে গুঞ্জন ইংল্যান্ডে।

কিন্তু জিদান কি যাবেন? নাকি আরেক মৌসুম রিয়ালে থাকবেন? সপ্তাহ দুয়েক আগে মার্কা-এএস আর ইএসপিএনের মতো সংবাদমাধ্যম জানিয়েছিল, জিদান চলে যাচ্ছেন, ড্রেসিংরুমে খেলোয়াড়দের বিদায়ও বলে দিয়েছেন। তখন জিদান অবশ্য বলেছিলেন, লিগ চলাকালে খেলোয়াড়দের তাঁর বিদায় বলার প্রশ্নই ওঠে না!

আর কাল লিগ শেষে সংবাদ সম্মেলনে তাঁর ভবিষ্যৎ নিয়ে প্রশ্নে বললেন, ‘আমাদের এখন শান্ত থাকতে হবে, আগামী কয়েক দিনের মধ্যে আমরা (রিয়াল মাদ্রিদ ও জিদান) এ নিয়ে কথা বলব।’

জিদান চলে গেলে আগামী মৌসুমে কে আসবেন, সে নিয়ে গুঞ্জনও আগে থেকেই চাউর হয়েছে। রিয়ালের যুবদল কাস্তিয়ার কোচ ও ক্লাবের কিংবদন্তি রাউল গঞ্জালেস, জুভেন্টাসের সাবেক কোচ মাসিমিলিয়ানো আলেগ্রি, রিয়ালকে ২০১৪ চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতানো সাবেক ও এভারটনের বর্তমান কোচ কার্লো আনচেলত্তি, বেলজিয়াম জাতীয় দলের কোচ রবের্তো মার্তিনেজ, আগামী জুনের ইউরোর পর জার্মানি জাতীয় দলের দায়িত্ব ছাড়তে যাওয়া কোচ ইওয়াখিম ল্যুভ...এই নামগুলোই বেশি শোনা যাচ্ছে।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন