default-image

জিনেদিন জিদান রিয়াল মাদ্রিদের কোচ, ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড চেলসির কোচ, মিকেল আরতেতা আর্সেনালের কোচ, আন্দ্রেয়া পিরলো জুভেন্টাসের কোচ। একবার ভেবে দেখুন তো কোচদের মিডফিল্ড কেমন হয়?

ঠিকই ধরেছেন, মরিসিও সারি ছাঁটাই হওয়ার কয়েক ঘন্টা না যেতেই নতুন কোচ বেছে নিয়েছে জুভেন্টাস।ইতালির সাবেক মিডফিল্ডার পিরলোকে দেওয়া হয়েছে ক্রিস্টিয়ানো রোনালদোদের দায়িত্ব। সপ্তাহখানেক আগেই তাঁকে অনূর্ধ্ব-২৩ দলের কোচের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছিল। ৪১ বছর বয়সী পিরলোর সঙ্গে দুই বছরের চুক্তি করেছে জুভেন্টাস।
ইতালির বিশ্বকাপজয়ী কিংবদন্তি এ মিডফিল্ডারের জন্য জুভেন্টাসকে সামলানো হবে বড় চ্যালেঞ্জ। এর আগে কখনোই যুব কিংবা মূল দলের দায়িত্ব পাননি তিনি। মোট কথা, সিরি আ জেতানো সারিকে ছাঁটাই করে রোমাঞ্চকর পথই বেছে নিল জুভেন্টাস। চ্যাম্পিয়নস লিগ শেষ ষোলো থেকে জুভেন্টাস বিদায় নেওয়ার পর সরিয়ে দেওয়া হয় সারিকে।
পিরলোকে কোচের দায়িত্ব দেওয়া নিয়ে জুভেন্টাসের বিবৃতি, ‘বিশ্বাস থেকে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া। বেঞ্চে অভিষেক থেকে প্রতিভাবান স্কোয়াডকে নেতৃত্ব দিতে যা দরকার পিরলোর সেসব আছে।’
জুভেন্টাসের আঙিনাও আগেই চেনা আছে পিরলোর। ২০১১ থেকে ২০১৫ পর্যন্ত ‘তুরিনের বুড়ি’দের জার্সিতে চারবার সিরি আ জয় এবং চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালেও খেলেছেন। ২০১৭ সালে খেলা ছাড়ার পর কোচিং ক্যারিয়ারে নামার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন। টানা নয়বার লিগজয়ী দলের দায়িত্ব পাওয়াটা তাঁর জন্য বেশ অভাবনীয়ই। যদিও ইতালির ২০০৬ বিশ্বকাপজয়ী দলের এ মিডফিল্ডারকে ফুটবলীয় প্রজ্ঞায় এগিয়ে রাখেন অনেকেই।
লিগে ছড়ি ঘোরালেও চ্যাম্পিয়নস লিগে গিয়ে বারবার হতাশ হতে হচ্ছে জুভেন্টাসকে। এসি মিলানের হয়ে দুবার চ্যাম্পিয়নস লিগ জয়ের স্বাদ নেওয়া আছে খেলোয়াড়ি জীবনে ‘চিরসবুজ’ তকমা পাওয়া পিরলোর।
বিজ্ঞাপন
মন্তব্য করুন