এই মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে হরলান্ড এরই মধ্যে ৩১ গোল করেছেন, করিয়েছেন আরও ৮টি।
এই মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে হরলান্ড এরই মধ্যে ৩১ গোল করেছেন, করিয়েছেন আরও ৮টি।ছবি : রয়টার্স

জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউর অন্ধকার যুগ থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে বের হয়ে এসেছে বার্সেলোনা। দলটার সভাপতির পদে এখন জায়গা করে নিয়েছেন হোয়ান লাপোর্তা। সেই লাপোর্তা, বার্সেলোনার ইতিহাসের সফলতম অধ্যায়টা এসেছিল যাঁর অধীনে। রোনালদিনিও, মেসিদের মতো অনেক ফুটবলারের ‘তারকা’ হয়ে ওঠা যাঁর সময়ে।

লাপোর্তার দায়িত্ব নেওয়ার সঙ্গে সঙ্গে দুনিয়াজোড়া বার্সা–সমর্থকেরা আশায় বুক বেঁধেছেন আবার। সবার স্বপ্ন, যে লাপোর্তার অধীনে এককালে রোনালদিনিও, থিয়েরি অঁরি, দানি আলভেস, ডেকো, স্যামুয়েল ইতোর মতো বিশ্বখ্যাত তারকারা দলে এসেছিলেন, সে লাপোর্তাই এবার দলে এখনকার বিশ্বখ্যাত কিছু তারকাকে বার্সেলোনায় নিয়ে আসবেন। লাপোর্তা নিজেও বোঝেন সেটা। বোঝেন বলেই বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের তরুণ নরওয়েজিয়ান স্ট্রাইকার আর্লিং ব্রট হরলান্ডকে দলে আনার জন্য তোড়জোড় শুরু করে দিয়েছেন এই সভাপতি। এমন খবরই দিয়েছে মার্কা, এএস, স্পোর্তসহ বেশ কিছু স্প্যানিশ সংবাদমাধ্যম।

বিজ্ঞাপন
default-image

হরলান্ডকে নতুন করে পরিচয় করিয়ে দেওয়ার কিছু নেই। রেড বুল সালজবুর্গ থেকে শুরু করে এখন বরুসিয়া ডর্টমুন্ডে গোলের বন্যা বইয়ে দিচ্ছেন ২০ বছর বয়সী নরওয়েজিয়ান স্ট্রাইকার। এই মৌসুমেও সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে এরই মধ্যে ৩১ গোল করেছেন, করিয়েছেন আরও ৮টি। বর্তমান সময়ের অন্যতম সেরা এই স্ট্রাইকারকে পাওয়ার জন্য হাত বাড়িয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি, চেলসি, রিয়াল মাদ্রিদ, লিভারপুল, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, বায়ার্ন মিউনিখের মতো দলগুলো। সে দৌড়ে পিছিয়ে থাকতে চায় না বার্সেলোনাও। আর চায় না বলেই লাপোর্তা যেকোনো মূল্যে এই স্ট্রাইকারকে দলে আনতে চাইছেন।

তবে চাইলাম আর পেয়ে গেলাম—হরলান্ডের ক্ষেত্রে এই সূত্র যে খাটবে না, তা-ও লাপোর্তা ভালো করেই জানেন। ডর্টমুন্ডের মতো দলের সঙ্গে হরলান্ডের জন্য আলোচনার টেবিলে বসতেই বলতে গেলে টাকার থলি নিয়ে বসতে হবে। আর জেডন সাঞ্চো, ক্রিস্টিয়ান পুলিসিক, ওসমানে দেম্বেলে, আবদু দিয়ালো, ইলকায় গুন্দোয়ান, পিয়েরে এমেরিক অবামেয়াংয়ের মতো তারকাদের ক্ষেত্রে দেখা গিয়েছে, ডর্টমুন্ডের চাহিদামতো দাম না দিলে ক্লাবটা খেলোয়াড় ছাড়তে রাজি হয় না মোটেও। সাঞ্চো ছাড়া বাকিদের ক্ষেত্রে ডর্টমুন্ড যা চেয়েছে, তা-ই পেয়েছে। সাঞ্চোর জন্য দাবিকৃত অর্থ পায়নি, তাই ছাড়েওনি এই ইংলিশ উইঙ্গারকে।

তাই মার্কা, স্পোর্তের মতো সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, হরলান্ডের জন্য দরকার হলে নিজ দলের বেশ কিছু খেলোয়াড়কে বিক্রি করে দিতেও রাজি লাপোর্তা। তা-ও এই নরওয়েজিয়ান স্ট্রাইকারকে তাঁর লাগবেই।

কিন্তু কাকে কাকে হরলান্ডের জন্য ছাড়তে রাজি বার্সেলোনা? মার্কা জানিয়েছে বেশ কিছু খেলোয়াড়ের নাম, যাঁদের মধ্যে রয়েছেন ব্রাজিলের মিডফিল্ডার ফিলিপ কুতিনিও, স্প্যানিশ লেফটব্যাক জুনিয়র ফিরপো, দুই বিশ্বকাপজয়ী ফরাসি সেন্টারব্যাক সামুয়েল উমতিতি ও স্ট্রাইকার আঁতোয়ান গ্রিজমান, ড্যানিশ স্ট্রাইকার মার্টিন ব্রাথওয়াইট, বসনিয়ান মিডফিল্ডার মিরালেম পিয়ানিচ। একই মতামত স্পোর্তের ফুটবল বিশ্লেষক সের্হি কাপদেভিয়ারও।

বিজ্ঞাপন

কাপদেভিয়ার মতে, লাপোর্তার সঙ্গে এজেন্ট মিনো রাইওলার সুসম্পর্ক হরলান্ডকে বার্সায় এনে দিতে পারে। রাইওলা আবার হরলান্ডেরও মুখপাত্র। এর আগে লাপোর্তা প্রথম দফায় বার্সার সভাপতি থাকার সময়ে সুইডিশ স্ট্রাইকার ইব্রাহিমোভিচকেও বার্সেলোনায় এনেছিলেন এই রাইওলা। সঙ্গে এনেছিলেন ব্রাজিলিয়ান ফুলব্যাক ম্যাক্সওয়েলকে।

দেখা যাক, লাপোর্তাকে এবার বন্ধুকে ‘পটিয়ে’ হরলান্ডকেও বার্সার জার্সি পরাতে পারেন কি না!

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন