বিজ্ঞাপন
default-image

পেছন থেকে মেসি কয়েকজনকে মোহনীয় ভঙ্গিমায় ড্রিবল করে সামনে ওত পেতে থাকা আগুয়েরোকে বল বাড়িয়ে দিচ্ছেন গোল করার জন্য, এমন দৃশ্যের অবতারণা অন্তত ক্লাব পর্যায়ে হয়নি। হবেই–বা কী করে? মেসি হলেন ‘মিস্টার বার্সেলোনা’, এখন পর্যন্ত অন্য কোনো ক্লাবের জার্সি তাঁর গায়ে শোভা পায়নি।

ওদিকে আগুয়েরো তো এককালে সরাসরি মেসির লিগ প্রতিপক্ষের হয়েই খেলতেন। আতলেতিকো মাদ্রিদের হয়ে আলো ছড়িয়েই ইউরোপিয়ান ফুটবলে তাঁর প্রথম নজরে আসা। পরে ম্যানচেস্টার সিটিতে গিয়ে কিংবদন্তি হয়েছেন, ওদিকে মেসি বার্সাতে থেকেই ছুঁয়েছেন নতুন নতুন উচ্চতা।

default-image

শেষ বয়সে এসে অবশেষে দুজনের পথ একই বিন্দুতে মিলে যাচ্ছে। আগুয়েরো যে এই মৌসুমের পর সিটি ছাড়ছেন, এটা আগেই জানা গিয়েছিল। নিশ্চিত ছিল না তাঁর পরবর্তী গন্তব্য। কানাঘুষা শোনা যাচ্ছিল, হয়তো প্রিয় বন্ধু মেসির কাছেই যাবেন ক্যারিয়ার-সায়াহ্নে। সেটাই হচ্ছে। স্পেন, আর্জেন্টিনা ও ইংল্যান্ডের নির্ভরযোগ্য সব সংবাদমাধ্যম একযোগে খবর দিয়েছে, আগুয়েরোর পরবর্তী ঠিকানা ক্যাম্প ন্যুতে।

তা বার্সায় আগুয়েরোর দুই বছরের চুক্তিটাও দুই ধরনের হতে পারে। এমনও হতে পারে, এই স্ট্রাইকারকে সরাসরি দুই বছরের চুক্তির প্রস্তাব দিচ্ছে বার্সেলোনা। আবার এমনও হতে পারে, এক বছরের চুক্তির প্রস্তাব দিচ্ছে এই শর্তে যে এই এক বছর ভালো খেললে আরও এক বছরের জন্য চুক্তি নবায়ন হবে। কোন পদ্ধতিতে চুক্তির প্রস্তাব দেওয়া হবে, সেটা এখনো নিশ্চিত নয়। তবে আগুয়েরো যে আগামী চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালের পরেই বার্সার জার্সি গায়ে দিচ্ছেন, এটা নিশ্চিত।

জানা গেছে, মেসির সঙ্গে খেলার জন্য প্রায় ৫৮ শতাংশ কম বেতনে বার্সায় যেতে রাজি হয়েছেন আগুয়েরো। সিটিতে আগুয়েরো মৌসুমে প্রায় ১২ মিলিয়ন ইউরো বেতন পেতেন, বার্সায় সেটা ৫ মিলিয়ন হবে বলে গুঞ্জন। আর এই দুই বছরে আগুয়েরো যদি বার্সাকে চ্যাম্পিয়নস লিগ জেতাতে সাহায্য করতে পারেন, তাহলে বোনাসও পাবেন।

এই সপ্তাহে এভারটনের সঙ্গে সিটির জার্সি গায়ে লিগে শেষ ম্যাচ খেলবেন আগুয়েরো। তবে মূল লক্ষ্য ২৯ তারিখের চ্যাম্পিয়নস লিগ ফাইনাল। সেদিন আগুয়েরোর সিটি লড়বে আরেক ইংলিশ ক্লাব চেলসির বিপক্ষে, মহাদেশীয় শ্রেষ্ঠত্বের লড়াইয়ে। সিটির জার্সি গায়ে চারবার লিগ, একবার এফএ কাপ, তিনটি কমিউনিটি শিল্ড জিতেছেন এই আর্জেন্টাইন স্ট্রাইকার। ২০১১ সালে সাড়ে তিন কোটি ইউরোর বিনিময়ে আতলেতিকো থেকে সিটিতে নাম লেখানো এই স্ট্রাইকার ২০১১-১২ মৌসুমের শেষ দিনে যেভাবে নাটকীয়ভাবে গোল করে সিটিকে লিগ শিরোপা জিতিয়েছিলেন, লিগের ইতিহাসেরই অংশ হয়ে গেছে সেটা।

বার্সেলোনা ছাড়াও জুভেন্টাস, ইন্দিপেন্দিয়েন্তে, চেলসি, ইন্টার মায়ামির মতো ক্লাবগুলো আগুয়েরোকে দলে পাওয়ার জন্য চেষ্টা করছে, এমন খবর শোনা গিয়েছিল। কিন্তু আগুয়েরোর মন চাইছিল বার্সাকেই।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন