বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
নেপালের খেলোয়াড়েরা প্রতারণা করে পেনাল্টি নিয়েছে। রেফারি অন্যায্য পেনাল্টি দিয়েছেন। এটা মানা যায় না। এখন ফাইনালটা হবে অন্যায্য।’
অস্কার ব্রুজোন, বাংলাদেশের কোচ

তবে শেষ পর্যন্ত মুখও বন্ধ রাখতে পারেননি বাংলাদেশ কোচ। ব্রুজোন বলেন, ‘আমার ছেলেরা অবিশ্বাস্য খেলেছে। মাঠে যা ঘটেছে, সেটা অবিশ্বাস্য। আমরা ফাইনাল খেলার যোগ্য দাবিদার ছিলাম। নেপালের খেলোয়াড়েরা প্রতারণা করে পেনাল্টি নিয়েছে। রেফারি অন্যায্য পেনাল্টি দিয়েছেন। এটা মানা যায় না। এখন ফাইনালটা হবে অন্যায্য।’

আনিসুরের লাল কার্ডেও আপত্তি আছে ব্রুজোনের, ‘জিকোর (আনিসুর) পায়ে বল লেগেছিল। পা থেকে বল আসে হাতে। তবু রেফারি লাল কার্ড দিলেন!’

default-image

সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন ফরোয়ার্ড রাকিব হোসেন। তিনি বলেন, ‘ড্রেসিংরুমে আমরা সব খেলোয়াড়েরা কান্নাকাটি করেছি। আমরা অনেক পরিশ্রম করেও ফল পেলাম না। আমাদের কেউ ফাউল করেনি নেপালের ফুটবলারকে। ও ডাইভ দিয়েছে।’

ম্যাচ শেষে নেপালের কোচ আবদুল্লাহ আল মুত্তারিও জোর দিয়ে বলতে পারেননি পেনাল্টিটি ন্যায্য ছিল। এ নিয়ে তাঁর কৌশলী উত্তর, ‘আমি নিশ্চিত নয়, এটা পেনাল্টি কি না! আমার মনে হয়, এটা পেনাল্টি।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন