বিজ্ঞাপন

মৃত্যুর সময় অরনাউর বয়স হয়েছিল মাত্র ৪৬ বছর। গ্লাভসজোড়া খুলে রাখার পর ফুটবল প্রশাসক হিসেবে ক্যারিয়ার শুরু করেছিলেন। সর্বশেষ ছিলেন রিয়াল ওভেইদোর ক্রীড়া পরিচালকের দায়িত্বে। অরনাউর মৃত্যুসংবাদটি সবার আগে জানিয়েছে ওভেইদো, নিজেদের টুইটার অ্যাকাউন্টে। অরনাউর মৃত্যুটা অবশ্য স্বাভাবিক নয়, ওভেইদোর এক রেললাইনের কাছে তাঁর মৃতদেহ পাওয়া গেছে। মৃত্যুর কারণ কী তা এখনো স্পষ্ট নয়।

১৬ বছরের পেশাদার ক্যারিয়ারে বার্সেলোনা ছাড়াও খেলেছেন মালাগার হয়ে। কখনো স্পেনের জাতীয় দলে না খেললেও অনূর্ধ্ব-২১ দলের হয়ে খেলেছেন নিয়মিত। বার্সেলোনায় যখন ছিলেন, তখন বাইয়া-হেস্প-রেইনা ছাড়াও সতীর্থ ছিলেন রোনালদো নাজারিও, লুইস ফিগো, রিভালদো, পেপ গার্দিওলা, লুইস এনরিকে, হুলেন লোপেতেগির মতো তারকাদের।

২০১৯ সাল থেকে রিয়াল ওভেইদোর ক্রীড়া পরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন অরনাউ। এর আগে মালাগাতেও একই দায়িত্বে ছিলেন। ২০১৫ সালে মালাগাতে দায়িত্ব নেওয়ার পর ক্লাবের যুব প্রকল্পে রেখেছেন অনেক ভূমিকা।

শুধু তা–ই নয়, কিছুদিন আগেও ঘরের ছেলের ঘরে ফেরার একটা সুযোগ তৈরি হয়েছিল। বার্সেলোনার নবনির্বাচিত সভাপতি হুয়ান লাপোর্তা টেকনিক্যাল সেক্রেটারি হিসেবে অরনাউকে ক্যাম্প ন্যুতে ফেরাবেন, এমন শোনা গেলেও শেষাবধি সে পরিকল্পনা আলোর মুখ দেখেনি। সেটা আর কোনো দিন আলোর মুখ আলোর মুখ দেখবেও না। এখন যে অরনাউর জীবনের আলোই নিভে গেছে!

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন