বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
১৯ ম্যাচে ৫২ পয়েন্ট বসুন্ধরার। ওদিকে ১৮ ম্যাচে ৩৯ পয়েন্ট দুইয়ে থাকা শেখ জামালের।

ম্যাচের দিন এমন এক সিদ্ধান্ত যেকোনো দলকে মানসিকভাবে ধাক্কা দিতে বাধ্য। জানা গেছে, আজ ম্যাচের জন্য প্রস্তুত হচ্ছিলেন শেখ জামালের খেলোয়াড়েরা। কোচ শফিকুল ইসলামও ম্যাচের জন্য প্রস্তুত হচ্ছিলেন। এই অবস্থায় আচমকা ক্লাব থেকে তাঁকে বিদায়ের চিঠি পাঠানো হয়েছে। এ ব্যাপারে বিদায়ী কোচের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে শফিকুল ইসলাম বলেছেন, ‘আমি খুব বিস্মিত এ সিদ্ধান্তে। আমার অধীনে শেখ জামালের ফলাফল বেশ ভালো। তবু কেন আমাকে ছাঁটাই করা হয়েছে, জানি না। আমি এ ব্যাপারে পরে কথা বলব।’

এ মৌসুমে প্রিমিয়ার লিগ এক ঘোড়ার দৌড়ে পরিণত হয়েছে। বসুন্ধরা কিংস দুর্দান্ত দাপটের সঙ্গে ছুটছে। অন্যরা দৌড়াচ্ছে দ্বিতীয় হওয়ার জন্য। ১৯ ম্যাচে ৫২ পয়েন্ট বসুন্ধরার। ওদিকে ১৮ ম্যাচে ৩৯ পয়েন্ট দুইয়ে থাকা শেখ জামালের।

এক ম্যাচ বেশি খেলে ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে তিনে আছে আবাহনী। ৬ আগস্ট আবাহনীর সঙ্গে ২-২ গোলে ড্র করেছিল শেখ জামাল। প্রথমার্ধে ২-০ গোলে এগিয়ে গেলেও পরে শেষ মুহূর্তের গোলে পয়েন্ট ভাগাভাগি মেনে নিতে হয়েছে শেখ জামালকে।

কোচ শফিকুলের ধারণা, তাঁর ছাঁটাইয়ে এ ম্যাচের প্রভাব থাকতে পারে, ‘আমার ধারণা, এ ম্যাচের ফল তারা মেনে নিতে পারেনি, এ কারণেই আমাকে ছাঁটাই করা হয়েছে। আমি আপনাদের পরে এ ব্যাপারে জানাব। আপাতত আমি বিস্মিত এবং মর্মাহত।’

default-image

এখন পর্যন্ত লিগে দুইয়ে থাকা শেখ জামাল চ্যাম্পিয়ন বা শীর্ষে থাকার মতো দল গড়েনি। দলের তিন গাম্বিয়ান পা ওমর জোবে, সুলাইমান সিল্লাহ ও সলোমন কিংয়ে ভর করেই এত দূর এসেছে দলটি। ২০১৯ সালে নাইজেরিয়ান কোচ জোসেফ আপুসিকে মাঝপথে বিদায় দেওয়া হলে দায়িত্ব পান শফিকুল ইসলাম। জাতীয় দলের সাবেক এই ডিফেন্ডারের অধীনে ভালো করেছে শেখ জামাল। স্কোয়াডের যে শক্তি, এর চেয়ে ভালো পারফরম্যান্স এনে দিয়েছেন দলকে। অবনমনের পথে থাকা দলকে সে মৌসুমে দলকে ষষ্ঠ বানিয়েছেন।

এবার তো দলকে দুইয়েই তুলে এনেছেন। তবু ক্লাব কর্তাদের সন্তুষ্ট করতে পারেননি।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন