জাভি বার্সেলোনার কোচ হওয়ার পর দলবদলের বাজারে একের পর এক চমক দেখাচ্ছে ক্লাবটি। ম্যানচেস্টার সিটির কাছ থেকে ফেরান তোরেসকে নিয়ে এসেছে তারা। ক্লাব কিংবদন্তি দানি আলভেজ আবার যোগ দিয়েছেন। মুফতে ক্লাবে যোগ দিয়েছেন আর্সেনালের পিয়েরে-এমেরিক অবামেয়াং। আর্সেনালে ব্রাত্য হয়ে পড়া স্ট্রাইকার ১৪ ম্যাচেই করে ফেলেছেন ১৪ গোল। তবু, রবার্ট লেভানডফস্কির মতো একজন স্ট্রাইকারের এই সময়ে বার্সেলোনায় যোগ দেওয়ার খবর কিছুটা হলেও বিস্ময় জাগায়।

ইএসপিএনের স্প্যানিশ ফুটবল বিশ্লেষক ইউলিয়ান লরেন্স গতকাল এই ব্যাপারে নেতিবাচক ধারণা পোষণ করছিলেন। বার্সেলোনার আর্থিক দুরবস্থার কথা মনে করিয়ে দিয়ে বলেছিলেন, লেভানডফস্কি নিজের শেষ চুক্তিতে আর্থিকভাবে লাভবান হতে চাইবেন। ওদিকে বার্সেলোনা আর্থিকভাবে ধুঁকছে। এ অবস্থায় লেভানডফস্কিকে নিতে চাইলে ক্লাব থেকে অন্য তারকাদের ছাড়তে হবে। তাই সে সম্ভাবনা খুব কম। লেভানডফস্কি যদি বেতন কমাতে রাজি হন, তাহলেই নাকি শুধু সম্ভব এটি।

বায়ার্ন মিউনিখের সঙ্গে লেভানডফস্কির চুক্তি শেষ হবে ২০২৩–এর জুনে। ৩৩ বছর বয়সী লেভানডফস্কির চুক্তি নবায়ন করতে চাইছে বায়ার্ন। কিন্তু লেভানডফস্কি নাকি এতে রাজি হচ্ছেন না। তাঁর এজেন্ট পিনি জাহাবি নাকি অন্য ক্লাবের সঙ্গে কথা বলছে। পোল্যান্ডের অন্য সংবাদমাধ্যমগুলোও এই খবরকে সমর্থন করছে। তারা বলছে, পোলিশ অধিনায়কের কাছের মানুষেরাই বলছেন, বার্সেলোনার সঙ্গে তিন বছরের চুক্তি পাকা করে ফেলেছেন তিনি।

আগামী জুনেই লেভানডফস্কিকে বার্সেলোনা কীভাবে পাবে, এই প্রশ্নও উঠছে। কারণ, বায়ার্নের সঙ্গে লেভানডফস্কির এখনো চুক্তির এক বছর বাকি। সে ক্ষেত্রে ওয়েবস্টার নিয়ম লেভানডফস্কি ও বার্সেলোনার পক্ষে কাজ করবে। এই নিয়ম অনুযায়ী একজন খেলোয়াড়কে মৌসুম শেষ হওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে ক্লাব ছাড়ার ইচ্ছা জানাতে হবে বর্তমান ক্লাবকে। নতুন যে ক্লাবে যাবেন, সেটা অন্য কোনো দেশের হতে হবে এবং নতুন ক্লাবকে পুরোনো ক্লাবকে ওই খেলোয়াড়ের বেতনের সমান ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।

লেভানডফস্কি যেহেতু বায়ার্নের কাছ থেকে বেতন বাবদ করসহ ২ কোটি ৩০ লাখ ইউরো পান, বার্সেলোনাকে ক্ষতিপূরণ হিসেবে এই অর্থ দিতে হবে। যদিও বিল্ডসহ বেশ কিছু জার্মান সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, বায়ার্ন মিউনিখের দাবি, লেভানডফস্কি এখনো তাদের কিছুই জানায়নি এবং এখনো চুক্তি নবায়নের ব্যাপারে তারা আশাবাদী। আগামীকাল চ্যাম্পিয়নস লিগে ভিয়ারিয়ালের বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনালে দ্বিতীয় লেগে গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ দলের। সে ম্যাচের আগে এমন গুঞ্জনে কিছুটা হলেও বিপত্তি পড়েছে বায়ার্ন মিউনিখ।