ক্লাবকর্তাদের হঠকারিতায় বিরক্ত মেসি শেষমেশ গত মৌসুমের শেষ ক্লাব ছাড়তেই চেয়েছিলেন।
ক্লাবকর্তাদের হঠকারিতায় বিরক্ত মেসি শেষমেশ গত মৌসুমের শেষ ক্লাব ছাড়তেই চেয়েছিলেন।ছবি: রয়টার্স

এ কী অলক্ষুনে কথাবার্তা! লিওনেল মেসি বলা বার্সেলোনা ছাড়বেন! এমনটা ভাবা যায়?

গত এক-দেড় বছর আগেই মেসির বার্সেলোনা ছাড়ার প্রসঙ্গ উঠলে বেশির ভাগ মানুষের প্রতিক্রিয়া এমনটাই হতো। কিন্তু গত এক বছরে বিশ্ব এমনভাবে বদলেছে, যা হয়তো কেউ আগে অনুমানও করতে পারেননি। বদলেছে বার্সেলোনাকে নিয়ে মেসির মনের অবস্থাও। ক্লাবকর্তাদের হঠকারিতায় বিরক্ত মেসি শেষমেশ গত মৌসুমের শেষ ক্লাব ছাড়তেই চেয়েছিলেন। পরে হাজারো কাণ্ডকীর্তি করে, চুক্তির ফাঁকফোকর দেখিয়ে তাঁকে ধরে রাখা হলেও, ক্লাবের সঙ্গে নতুন চুক্তি সই করেননি মেসি। আর নতুন চুক্তি সই না করলে চলতি মৌসুমের শেষে মেসির বার্সা ছাড়তে আইনগত আর কোনো বাধা থাকবে না।

বিজ্ঞাপন
default-image

তাই এই এক বছর মেসি বার্সায় থাকলেও, এই প্রশ্নটা ফুটবল সংশ্লিষ্ট সকলের মনেই থেকে থেকে উঠেছে। মেসি কী বার্সেলোনায় থাকবেন? নাকি পাড়ি জমাবেন অন্য কোথাও? মেসিকে দলে পাওয়ার আশায় হাঁকডাক শুরু হয়ে গিয়েছে পিএসজি ও ম্যানচেস্টার সিটি শিবির থেকেও। শেষমেশ সবকিছুই নির্ভর করছে মেসি কী নতুন করে বার্সার সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করবেন কি না, তাঁর ওপর। এক বছর ধরে দুরু দুরু করে কাঁপছে বার্সাভক্তদের বুক। দলের সর্বকালের সেরা খেলোয়াড়টিকে কে-ই বা অন্য ক্লাবের জার্সিতে দেখতে চায়?

এই অবস্থায় অবশেষে বার্সেলোনা ভক্তদের কলিজায় পানি এনে দিল ইএসপিএন আর্জেন্টিনা। তাঁরা জানিয়েছে, আরও দুই বছরের জন্য বার্সেলোনার সঙ্গে চুক্তি বাড়াচ্ছেন দলের অধিনায়ক। নতুন চুক্তি অনুযায়ী ২০২৩ সাল পর্যন্ত বার্সতেই থাকবেন মেসি।

ইএসপিএন আর্জেন্টিনার ওই একই প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, মেসিকে সন্তুষ্ট করার জন্য সম্ভাব্য সবকিছুই করতে রাজি বার্সেলোনা। আর বার্সা জানে, কীভাবে মেসিকে খুশি রাখা যায়। চার বছর আগে তাঁরা যে ভুল করেছিল, সে ভুলের প্রায়শ্চিত্ত এবার তাঁরা যে করেই হোক, করবে। পিএসজি থেকে দলে ফিরিয়ে আনবে মেসির প্রিয় বন্ধু নেইমারকে।

default-image

ওদিকে মেসির সঙ্গে বার্সেলোনার চুক্তির যা অবস্থা, প্রায় একই অবস্থা নেইমার-পিএসজির মধ্যেও। মেসির চুক্তি শেষ হবে এই জুনে, নেইমারেরটা আগামী জুনে। প্যারিসেও নতুন চুক্তি সই করতে গড়িমসি করছেন নেইমার। কে জানে। মেসির সঙ্গে আরও একটিবার খেলার আশা থেকেই কি না!

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন