বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন

মনে হতে পারে, হঠাৎ ম্যাকটমিনের মতো আড়ালে থাকা এক ফুটবলারকে নিয়ে রাংনিকের মতো কোচ মেতে উঠলেন কেন। এখন যে খেলোয়াড়ের একমাত্র গোলে গুরুত্বপূর্ণ একটা ম্যাচ জেতা হয়ে যায়, কোচ তো তাঁকে নিয়েই মেতে উঠবেন!

গত রাতে এফএ কাপে তৃতীয় রাউন্ডের ম্যাচে অ্যাস্টন ভিলাকে ১-০ গোলে হারিয়েছে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ভিলার কোচ এখন স্টিভেন জেরার্ড, খেলোয়াড়ি জীবনে ইউনাইটেডের সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী লিভারপুলের কিংবদন্তি অধিনায়ক ছিলেন যিনি। জেরার্ডের ভিলার বিপক্ষে পাওয়া জয়টা তাই ইউনাইটেড সমর্থকদের কাছে একটু বেশিই মধুর মনে হবে। আর মধুর জয় পাওয়ার সবচেয়ে বড় নিয়ামক যিনি, তাঁকে নিয়ে কোচ তো মাতামাতি করবেনই!

ম্যাচের আট মিনিটেই মাঝমাঠ থেকে ব্রাজিলের মিডফিল্ডার ফ্রেদের অসাধারণ এক ক্রসে হেড করে দলকে এগিয়ে দেন ম্যাকটমিনে। অ্যাস্টন ভিলা বেশ শক্তিশালী দল নিয়েই নেমেছিল, কিন্তু ম্যাচের বাকি সময় একটা গোলের জন্য মাথা কুটে মরেছে।

৩০ মিনিটে ইংলিশ ফরোয়ার্ড ওলি ওয়াটকিন্সের একটা শট পোস্টে লেগে ফিরে আসে। এমনকি দ্বিতীয়ার্ধের নবম মিনিটে ইংলিশ স্ট্রাইকার ড্যানি ইংসের কল্যাণে সমতায়ও ফেরে ভিলা, কিন্তু দীর্ঘ সময় ধরে ভিডিও অ্যাসিস্ট্যান্ট রেফারির সাহায্য নিয়ে জানা যায়, গোল হওয়ার প্রক্রিয়ার সময়ে ইংলিশ মিডফিল্ডার জ্যাকব র‍্যামসি ইউনাইটেডের উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার এদিনসন কাভানিকে ফাউল করেছিলেন, যে কারণে গোলটা স্থায়ী হয়নি।

default-image

গোটা ম্যাচে ইউনাইটেডের হয়ে কয়েকটা দুর্দান্ত সেভ করেছেন স্প্যানিশ গোলকিপার দাভিদ দা হেয়া। শেষমেশ নিশ্চিত করেছেন, চতুর্থ রাউন্ডে ইউনাইটেড উঠছেই। পরের রাউন্ডে মিডলসব্রোর বিপক্ষে লড়বে দলটা।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন