default-image

প্রিমিয়ার লিগের প্রথম পর্ব শেষ হয়েছে গতকাল। শিষ্যদের পারফরম্যান্সের কাটাছেঁড়া করতে বসে পড়েছেন জাতীয় দলের প্রধান কোচ জেমি ডে। তাঁকে তিনজন মাত্র খেলোয়াড় খুশি করতে পেরেছেন। তাঁরা হলেন, উত্তর বারিধারার স্ট্রাইকার সুমন রেজা, শেখ রাসেল ক্রীড়াচক্রের মিডফিল্ডার মোহাম্মদ আবদুল্লাহ ও চট্টগ্রাম আবাহনীর উইঙ্গার রাকিব হোসেন।

২২ থেকে ৩০ মার্চ কাঠমান্ডুতে অনুষ্ঠেয় তিন দেশীয় টুর্নামেন্টে বাংলাদেশের খেলা প্রায় চূড়ান্তই ছিল। আফগানিস্তান বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচ খেলতে বাংলাদেশে আসছে না, এই চিঠি পাওয়ার পরই কাল আনুষ্ঠানিকভাবে চূড়ান্ত হয়েছে নেপাল সফর। জাতীয় ফুটবল দলের সব নজর এখন কাঠমান্ডুর টুর্নামেন্ট ঘিরে। সেখানে স্বাগতিক নেপাল ও বাংলাদেশ জাতীয় দলের সঙ্গে অন্য দলটি কিরগিজস্তান অনূর্ধ্ব–২৩। বাংলাদেশ দলের অনুশীলন শুরু হতে পারে ১২ মার্চ। কোচ ২৩ জন খেলোয়াড়কে ডাকতে চান।

বিজ্ঞাপন

এত দিন ঘরোয়া ফুটবল ম্যাচ মাঠে বসে না দেখার বদনাম ছিল জেমির। এবার লিগের শুরুতেই ঢাকায় ফিরে কোয়ারেন্টিন শেষ করে মাঠে বসে দেখেছেন ম্যাচগুলো। কুমিল্লা ও টঙ্গী গিয়ে ম্যাচ দেখেছেন। লিগের পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে নেপাল সফরের দল গঠন করার কথা জানিয়েছেন তিনি। জেমি বলেন, ‘খেলা দেখে ভালো লাগার কথা যদি বলেন, তাহলে আমি তিনটি নাম বলব। সুমন রেজা, আবদুল্লাহ ও রাকিব। ধারাবাহিকভাবে ওরা প্রতিটি ম্যাচ ভালো খেলেছে।’

গত নভেম্বরে ঢাকায় নেপালের বিপক্ষে সিরিজে জাতীয় দলে অভিষেক হয় সুমনের। বারিধারার জার্সিতে ৫ গোল করেছেন সুমন। স্থানীয় খেলোয়াড়দের মধ্যে শেখ রাসেলের মিডফিল্ডার আবদুল্লাহ ও আরামবাগ ক্রীড়া সংঘের স্ট্রাইকার নিহাত জামানেরও ৫ গোল। সুমনকে আগের চেয়ে ধারালো মনে হয়েছে জেমির, ‘স্ট্রাইকার হিসেবে সে আগের চেয়ে ধারালো হয়েছে। প্রতিটি ম্যাচেই খেলছে একই ছন্দে। ওর ধারাবাহিকতা আমার ভালো লেগেছে।’

এবারের লিগের প্রথম পর্বে আলো কেড়ে নিয়েছেন শেখ রাসেলের মিডফিল্ডার আবদুল্লাহ। চোট কাটিয়ে সর্বশেষ বাতিল হওয়া মৌসুম দিয়ে ফিরলেও আলোচনায় আসতে পারেননি। এবারের লিগে ২৩ বছর বয়সী এই মিডফিল্ডার বেশির ভাগ ম্যাচেই উইঙ্গার হিসেবে খেলেছেন। তাঁকে নিয়েও খুশি জেমি, ‘আবদুল্লাহর ফেরাটা দারুণ হয়েছে। নিজে যেমন বেশ কয়েকটি গোল করেছে, আবার করিয়েছে। রক্ষণভাগকে সহযোগিতা করেছে। আগের আবদুল্লাহকে দেখতে পাচ্ছি। ওর খেলায় আমি খুবই সন্তুষ্ট।’

default-image

চট্টগ্রাম আবাহনীর তরুণ রাকিব লিগে গোল পেয়েছেন তিনটি। তবে গোল কম করলেও নজর কেড়েছেন। তাঁকে নিয়ে জেমির কথা, ‘রাকিব অনেক উন্নতি করেছে গত কয়েক মাসে। শারীরিকভাবে ভালো অবস্থানে আছে। ওর খেলায় পরিপক্বতা এসেছে। আগের চেয়ে অনেক বেশি আত্মবিশ্বাসীও সে।’

জাতীয় দলের বেশির ভাগ খেলোয়াড় বসুন্ধরা কিংস ও আবাহনী লিমিটেডের। কিন্তু এই দুই দলের কোনো খেলোয়াড় বিশেষভাবে আলো কেড়ে নিতে পারেননি। যদিও তাঁদের খেলায় সন্তুষ্টই আছেন কোচ। তবে যেসব খেলোয়াড় ক্লাবের জার্সিতে তেমন খেলার সুযোগ পাননি, তাঁদের এবার জাতীয় দলে ডাকা হবে না বলে দিচ্ছেন জেমি, ‘ক্লাবের হয়ে লিগে তেমন সুযোগ না পাওয়া খেলোয়াড়েরা জাতীয় দলে বিবেচনায় আসবে না।’ আজকালের মধ্যে ঘোষিত জাতীয় দলে নতুন পাঁচ–ছয়টি মুখ রাখার আভাস দিয়েছেন জেমি।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন