বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

তবে বাংলাদেশের দলীয় সূত্র জানিয়েছে, মালদ্বীপের আক্রমণ ঠেকাতে বিশেষ পরিকল্পনা নিয়েছেন বাংলাদেশ কোচ। সেই বিশেষ পরিকল্পনা হলো, রক্ষণ একেবারে আঁটসাঁট রাখা। আলী আশফাকদের কোনো জায়গা দেওয়া হবে না রক্ষণে। তপু বর্মণ, তারিক কাজীরা সদা সতর্ক থাকবেন।

জমাট রক্ষণ বলতে যা বোঝায়, সেটাই আগামীকাল মালদ্বীপের জন্য তৈরি রাখছে বাংলাদেশ। কোনোভাবেই পোস্টে শট নিতে দেওয়া হবে না আশফাকদের।

মালদ্বীপের আক্রমণের প্রাণ আলী আশফাক জাতীয় দলের হয়ে ৮১ ম্যাচে ৫৩ গোল করেছেন। আরেক স্ট্রাইকার আলী ফাসির করেছেন ৬০ ম্যাচে ১২ গোল। মূলত বদলি নামা স্ট্রাইকার আসাদুল্লাহ আবদুল্লাহ ৪০ ম্যাচে করেছেন ৯ গোল। অভিজ্ঞ এই খেলোয়াড়েরাই অনেক দিন ধরে মালদ্বীপকে টেনে নিয়ে যাচ্ছেন।

default-image

তবে শুধু দুই মূল স্ট্রাইকার আলী আশফাক আর আলী ফাসিরই নন, দুই উইঙ্গারকেও বিপজ্জনক বলছেন বাংলাদেশ কোচ। তাঁর কথা, ‘ওদের চতুষ্টয় যেকোনো দলের জন্য বিপদের কারণ। তবে আমরা সতর্ক থাকব।’

আগামীকাল মালদ্বীপকে হারিয়েই বাংলাদেশ দল সাফ ফাইনালের পথে আরেক ধাপ এগোতে চায়। সংবাদ সম্মেলনে ব্রুজোন সেটাই বলেছেন, ‘আমরা দুই ম্যাচে ৪ পয়েন্ট পেয়েছি। মালদ্বীপকে হারাতে পারলে ৭ পয়েন্ট হবে। সে ক্ষেত্রে শেষ ম্যাচে নেপালের সঙ্গে হয়তো ড্র করলেও চলবে। কাজেই আমরা মালদ্বীপকে হারিয়েই ফাইনালের পথে ভালোভাবে টিকে থাকতে চাই।’

অধিনায়ক জামাল ভূঁইয়া ম্যাচের আগে প্রতিপক্ষকে নিয়ে ভাবতেই চান না। সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, ‘আমরা নিজেদের নিয়েই ভাবছি। ম্যাচটা জিতেই আমরা ফাইনালের পথে এগোতে চাই।’

default-image

কিন্তু মালদ্বীপ মরিয়া হয়ে আছে। নেপালের কাছে হেরে দেয়ালে পিঠ ঠেকে গেছে স্বাগতিকদের। সংবাদ সম্মেলনে মালদ্বীপের দেশীয় কোচ আলী সুজাইন বললেন, ‘প্রথম ম্যাচ হেরে আমরা চাপের মুখে আছি। তবে মাঝে পাঁচ দিন বিশ্রাম পেয়ে এখন ঘুরে দাঁড়াতে তৈরি আমরা। জয়ের জন্য আমরা সর্বশক্তি নিয়ে খেলব।’

৩৪ বছর বয়সী মালদ্বীপ অধিনায়ক আকরাম আবদুল ঘানি তাঁর দলের জয়ের পথে বড় বাধা মানেন বাংলাদেশ কোচ অস্কার ব্রুজোনকে। ব্রুজোন মালদ্বীপের ক্লাব ফুটবলে দেড় বছর কাজ করার সুবাদে এখানে সবাইকেই চেনেন–জানেন। সেটা উল্লেখ করেই মালদ্বীপ অধিনায়কের কথা, ‘ব্রুজোন বাড়তি শক্তি জোগাবেন বাংলাদশকে। তবে আমাদের সামনে জয়ের বিকল্প নেই। আমরা অবশ্যই জিততে চাই।’

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন