লিগ এবার হতাশা উপহার দেবে তাঁদের।
লিগ এবার হতাশা উপহার দেবে তাঁদের। ছবি: এএফপি

এ মৌসুমেই মুখোমুখি হতে দেখা গেছে মেসি-রোনালদোকে। দেখা হবে হবে করেও হচ্ছে না মেসি-নেইমারের লড়াই। অসময়ে চোটে পড়ে প্রায় চার সপ্তাহের জন্য ছিটকে গেছেন নেইমার। চ্যাম্পিয়নস লিগে আজ রাতে তাই ন্যু ক্যাম্পে মেসির মুখোমুখি হতে তো পারছেনই না, নিজের পার্ক দ্য প্রিন্সেসেও নামতে পারবেন কি না সন্দেহ আছে নেইমারের। চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ ষোলোর সবচেয়ে প্রতীক্ষিত লড়াইটা এবার ফাঁকি দিল সবাইকে।

এ তো গেল চ্যাম্পিয়নস লিগের কথা। ঘরোয়া লিগও হতাশ করতে পারে এই তারকাদের সমর্থকদের। এ মৌসুমে ঘরোয়া লিগে এখন শীর্ষে নেই বার্সেলোনা, জুভেন্টাস বা পিএসজির কেউই। ফুটবল পরিসংখ্যানের জন্য বিখ্যাত সিআইইএস ফুটবল অবজারভেটরি ভবিষ্যদ্বাণী করেছে, মৌসুমের শেষ পর্যন্ত এমনটাই থাকব! অর্থাৎ এ মৌসুমে লিগ শিরোপা জেতা হবে না মেসি, রোনালদো ও নেইমারের কারওই! সর্বশেষ এমন কিছু দেখা গেছে ২০১৪ সালে।

মৌসুমের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মুহূর্ত চলে এসেছে। এই সময়েই লম্বা রেসের শেষ লেগটা শুরু হবে। বড় দলগুলো এ সময়ই ভাগ্য বদলে ফেলে। গত মৌসুমে এ পর্যায়ে এসেই আচমকা চমকে দিয়েছিল বায়ার্ন মিউনিখ। এত দুর্দান্ত দাপটে খেলেছে যে সবাইকে ছিটকে বুন্দেসলিগা জিতেছে। জিতেছে চ্যাম্পিয়নস লিগ। সে দৌড়ের সম্ভাব্য সেরা সমাপ্তি টেনেছে কদিন আগে বিশ্ব ক্লাব বিশ্বকাপ জিতে। মাত্র দ্বিতীয় দল হিসেবে মৌসুমের সব কটি শিরোপা জিতেছে বায়ার্ন।

বিজ্ঞাপন

সিআইইএস বলতে চাইছে এ মৌসুমে এমন কিছু অন্তত করা হচ্ছে না অন্য কোনো দলের। লিগে বর্তমান পয়েন্ট তালিকার সঙ্গে কোন দল প্রতিপক্ষের বিপক্ষে ম্যাচে কত শট নিচ্ছে, প্রতিপক্ষের ডি-বক্সের ভেতরে ঢুকে কয়বার গোলের চেষ্টা করা হচ্ছে এবং নিজেরা কত গোল হজম করছে—সবই হিসাব করেছে সিআইইএস। এসবের ওপর মৌসুমের শেষ কোন দলের পয়েন্ট কত হবে, সে হিসাব দিয়েছে সংস্থাটি। আর সে হিসাব যদি বাস্তব হয়ে ওঠে, তবে এ মৌসুমে ঘরোয়া লিগ জেতা হচ্ছে না বার্সেলোনা, রিয়াল মাদ্রিদ, জুভেন্টাস, পিএসজি, লিভারপুলের।

default-image

লা লিগা

আগেই বলা হয়েছে সর্বশেষ নেইমার, রোনালদো ও মেসিদের তিনজনই লিগ শিরোপা না জেতার দুঃখটা পেয়েছিলেন ২০১৪ সালে। সেবার এ তিনজন খেলতেন বার্সেলোনা ও রিয়াল মাদ্রিদে। স্প্যানিশ পরাশক্তিদের স্তব্ধ করে দিয়ে সেবার লিগ শিরোপা জিতেছিল আতলেতিকো মাদ্রিদ। সেবার বার্সেলোনা থেকে আতলেতিকোতে গিয়েছিলেন স্ট্রাইকার ডেভিড ভিয়া। শিরোপা জিতিয়েই এর প্রতিশোধ নিয়েছিলেন ভিয়া। এ মৌসুমেও বার্সেলোনা থেকে আরেক তারকা স্ট্রাইকার আতলেতিকোতে গিয়েছেন। লুইস সুয়ারেজে ভর করে দুর্দান্ত গতিতে ছুটছে সিমিওনের দল। দুইয়ে থাকা রিয়ালের চেয়ে দুই ম্যাচ কম খেলেও পাঁচ পয়েন্টে এগিয়ে আছে দলটি। সিআইইএস বলছে, মৌসুম শেষে এত এগিয়ে থাকবে না দলটি। কিন্তু ৩ পয়েন্টের অগ্রগামিতা নিয়েই এবার লা লিগা জিতবে আতলেতিকো (৮১ পয়েন্ট)।

ওদিকে কোমানের অধীনে ধীরে ধীরে নিজেদের ফিরে পাওয়া বার্সেলোনাও রিয়ালকে টপকে যাবে। ৭৮ পয়েন্ট পাওয়া বার্সেলোনার চেয়ে চার পয়েন্ট পিছিয়ে থাকবে রিয়াল মাদ্রিদ। আর ৬৭ পয়েন্ট নিয়ে চ্যাম্পিয়নস লিগ যাওয়া নিশ্চিত করবে সেভিয়া।

default-image

সিরি ‘আ’

জার্মান লিগে আট বছর ধরে রাজত্ব চলছে বায়ার্ন মিউনিখের। আর ইতালিতে নয় বছর ধরে কাউকে লিগ শিরোপার ধারেকাছে ঘেঁষতে দিচ্ছে না জুভেন্টাস। সেটা এ বছরই নাকি শেষ হতে পারে। মৌসুমের শুরু থেকেই লিগের শীর্ষস্থান ধরে রেখেছিল এসি মিলান। এই সপ্তাহেই সেটা কেড়ে নিয়েছে আন্তোনিও কন্তের ইন্টার মিলান। এ দলের স্ট্রাইকারদের দুর্দান্ত ফর্ম ও কন্তের কড়া হেডমাস্টারসুলভ কোচিং মৌসুমের শেষ পর্যন্ত দলকে টেনে নিয়ে যাবে বলেই ধারণা। পর্যবেক্ষণ বলছে, ৮১ পয়েন্ট নিয়ে শিরোপা জিততে যাচ্ছে ইন্টার মিলানই। আর দুই পয়েন্ট পিছিয়ে থাকবে ইব্রাহিমোভিচের এসি মিলান।

ক্রিস্টিয়ানো রোনালদো দুর্দান্ত ফর্মে আছেন। কিন্তু তাঁর দলের জন্য এটা যথেষ্ট হচ্ছে না। ৭৮ পয়েন্ট নিয়ে তিনে থাকবে জুভেন্টাস। আর চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ অবস্থানটা নিচ্ছে জেনারো গাত্তুসোর অধীনে থাকা নাপোলি।

বিজ্ঞাপন
default-image

লিগ আঁ

ইউরোপের সব লিগে চমক জাগাচ্ছে লিগ ওয়ানের সম্ভাব্য লিগ অবস্থান। মৌসুমের মাঝপথে কোচ টমাস টুখেলকে ছাঁটাই করেছে পিএসজি। মরিসিও পচেত্তিনোকে ডেকে নেওয়া হয়েছে। এরপরই আগামী মৌসুমের দল নিয়ে ভাবা শুরু করেছেন। মেসিকে আগামী মৌসুমে পেতে কত আগ্রহী জানিয়ে দিচ্ছেন বারবার। কিন্তু বর্তমান মৌসুমের পূর্বাভাস তাঁর চাকরি শঙ্কার মুখে। লিগে তাদের চেয়ে এগিয়ে আছে লিল। সিআইইএস বলছে মৌসুম লিলের (৭৯ পয়েন্ট) চেয়ে এগিয়ে শেষ করবে পিএসজি (৮১)। কিন্তু এটাই যথেষ্ট নয়। কারণ, ভবিষ্যদ্বাণী বলছে লিগ জিতে নেবে পিএসজির চরম প্রতিদ্বন্দ্বী লিওঁ (৮২)।

রুডি গার্সিয়ার অধীনে ১৩ মৌসুম পর লিগ জিতবে লিওঁ। সর্বশেষ যখন দলটি লিগ জিতেছিল, এই ক্লাবের হয়েই বিস্ময় বালক হিসেবে আবির্ভূত হয়েছিলেন করিম বেনজেমা। বেনজেমা রিয়ালে চলে যাওয়ার পরই ক্লাবটি নিজেদের ধার হারিয়েছে। মেম্ফিস ডিপাই, হুসেম আওয়ার, করনেট ও রায়ান চেরকিদের নিয়ে দারুণ এক তারুণ্যনির্ভর দল বানিয়েছেন গার্সিয়া। গত মৌসুমে চ্যাম্পিয়নস লিগে ম্যানচেস্টার সিটিকে হারিয়ে সেমিফাইনাল খেলা লিওঁ আসল চমকটা জমিয়ে রেখেছে এ মৌসুমের জন্য।

এ লিগ থেকে চ্যাম্পিয়নস লিগ নিশ্চিত করা অন্য দলটি হবে মোনাকো (৭৩ পয়েন্ট)।

default-image

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ

গতবার লিগের এক–পঞ্চমাংশ বাকি থাকতেই লিগ নিশ্চিত করে ফেলেছিল লিভারপুল। এবার করোনা–পরবর্তী নতুন পরিস্থিতি ও চট মিলিয়ে সে দাপট হারিয়ে ফেলেছে তারা। লিগে ২৪ ম্যাচ শেষে এখন ছয়ে আছে ইয়ুর্গেন ক্লপের দল। তবে মৌসুম শেষ হতে হতে এতটা বাজে কাটবে না তাদের সময়। এক ম্যাচ কম খেলেই তাদের চেয়ে ১৩ পয়েন্ট এগিয়ে থাকা ম্যানচেস্টার সিটিকে ধরা হবে না লিভারপুলের, তবে পর্যবেক্ষণ বলছে তিনে থেকে অন্তত চ্যাম্পিয়নস লিগ নিশ্চিত হবে লিভারপুলের (৬৯ পয়েন্ট)।

২৩ ম্যাচে ৫৩ পয়েন্ট পাওয়া ম্যানচেস্টার সিটি ৮৬ পয়েন্ট নিয়ে লিগ শেষ করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। আর তাদের নগর প্রতিদ্বন্দ্বীরা বর্তমানের মতো দুইয়েই থাকবে। উলে গুনার সুলশারের ইউনাইটেড ৭২ পয়েন্ট নিয়ে দুইয়ে থাকবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ইংল্যান্ড থেকে চ্যাম্পিয়নস লিগের শেষ স্থানটি পাবে বর্তমানে চারে থাকা চেলসি (৬৮ পয়েন্ট)।

সে ক্ষেত্রে কপাল পুড়ছে বর্তমানে তিনে থাকা লেস্টারের। ৬৬ পয়েন্ট পাওয়া দলটিকে ইউরোপা লিগে খেলতে হবে। সেখানে তাদের সঙ্গী হবে অ্যাস্টন ভিলা ও ওয়েস্টহাম ইউনাইটেড। অর্থাৎ কার্লো আনচেলত্তির এভারটন, জোসে মরিনিওর টটেনহাম ও মিকেল আরতেতার আর্সেনাল—সবাইকেই আগামী মৌসুমে ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতা টিভিতে দেখতে হবে!

default-image

বুন্দেসলিগা

বুন্দেসলিগা বায়ার্ন মিউনিখের সম্পত্তি হয়ে গেছে। সে সম্পত্তিতে এবারও বহু চেষ্টাতেও কেউ ভাগ বসাতে পারছে না। জুলিয়ান নাগেলসমানের লাইপজিগ আপাতত লিগে পাঁচ পয়েন্টে পিছিয়ে আছে বায়ার্নের চেয়ে। পর্যবেক্ষণ বলছে, লিগ শেষ হতে হতে সেটা বেড়ে ছয় হবে। ৭৭ পয়েন্ট নিয়ে টানা নবমবারের মতো লিগ জিতে নিতে যাচ্ছে বায়ার্ন। আর নিজেদের সেরা ডিফেন্ডারকে মৌসুম শেষে বায়ার্নের কাছে ছাড়তে বাধ্য হওয়া লাইপজিগ পাবে ৭১ পয়েন্ট। তাদের চেয়ে ৯ পয়েন্ট কম পেয়েও চ্যাম্পিয়নস লিগে ফিরবে বায়ের লেভারকুসেন। সমান পয়েন্ট পেয়ে ভলফসবুর্গও পাঁচ বছর পর ফিরবে চ্যাম্পিয়নস লিগে।

একটি নামের অনুপস্থিতি টের পাওয়ার কথা সবার। তরুণ প্রতিভায় ভর্তি বরুসিয়া ডর্টমুন্ডের দিকে লোভী দৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে ইউরোপের সব পরাশক্তি। আরলিং হরলান্ড, সাডোন সাঞ্চো, জিও রেইনা, জুড বেলিংহামদের দলের বর্তমান ফর্ম ভালো নয়। এ অবস্থায় দলটি পাঁচে থেকে লিগ শেষ করবে বলেই ধারণা করছে সিআইইএস।

বিজ্ঞাপন
ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন