বিজ্ঞাপন

আজ দলের অনুশীলনে যোগ না দেওয়ার জন্য কোচ রোনাল্ড কোমানের কাছে অনুমতি চেয়েছিলেন মেসি। কোচও মৌসুমে প্রভাব ফেলছে না এমন এক ম্যাচে অধিনায়ককে ছুটি দিতে আপত্তি করেননি। এরই মধ্যে শুধু মেসি নন, লিগে প্রতিটি ম্যাচ খেলা পেদ্রিকেও ছুটি দেওয়া হয়েছে। কালকের ম্যাচের পর লম্বা ছুটি পাচ্ছে পুরো দল। মধ্য জুলাই পর্যন্ত আর ক্লাব ফুটবল নিয়ে ভাবতে হবে না ফুটবলারদের। যাঁরা ইউরো বা কোপা আমেরিকায় ব্যস্ত থাকবেন না, তাঁদের জন্য বড় এক ছুটিই অপেক্ষা করছে।

মেসি অবশ্য অত বড় ছুটি পাচ্ছেন না। আর্জেন্টিনার বিশ্বকাপ বাছাইয়ের ম্যাচ আছে সামনে, এরপর কোপা আমেরিকাও আছে। এর আগে একটু বাড়তি ছুটি নিতেই পারেন মেসি। কিন্তু অধিনায়ক থাকছেন না কাল, এমন খবরে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রথমেই প্রশ্ন উঠেছে, তবে কি বার্সেলোনার জার্সিতে মেসিকে আর দেখার সুযোগ হবে না?

default-image

বার্সেলোনার সঙ্গে মেসির চুক্তি শেষ হয়ে যাচ্ছে জুনে। এর আগে মেসি বলেছেন, মৌসুম শেষ হওয়ার আগে সিদ্ধান্ত নেবেন না। যেহেতু এইবারের বিপক্ষে খেলছেন না, মৌসুম শেষ বলেই ধরে নেওয়া যায় মেসির। সে ক্ষেত্রে সিদ্ধান্ত চাইলে এখন নিয়ে ফেলতেই পারেন বার্সা অধিনায়ক। গত মৌসুমে চেষ্টা করেও দল ছাড়তে পারেননি।

আর এবার তো তাঁকে আটকানোর উপায়ও নেই বার্সেলোনার। হোয়ান লাপোর্তা নতুন সভাপতি হওয়ার পর বার্সেলোনার আশা বেড়েছিল। কিন্তু গুঞ্জন উঠেছে, মেসির কাছের মানুষেরা তাঁকে এবার পিএসজিতে যেতে বলছেন। গতবার স্ত্রী-পুত্রদের বার্সেলোনা ছাড়ার অনাগ্রহ বেশ বড় ভূমিকা রেখেছিল মেসির সিদ্ধান্ত বদলানোয়। এবারও তাই তেমন কিছু হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

মেসি যদি বার্সেলোনা ছাড়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে থাকেন, তবে তাঁর বার্সেলোনার হয়ে শেষ ম্যাচ হয়ে থাকবে সেলতা ভিগোর ম্যাচ। আর ঘরের মাঠে সেদিন মেসির গোলের পরও ২-১ গোলে হেরে বসেছিল বার্সেলোনা। এভাবে বিদায় নেবেন মেসি?

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন