বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন
default-image

উয়েফা এখনো সুপার লিগের বিরুদ্ধে এবং এখনো ক্লাবগুলোকে শাস্তি দেওয়ার ইচ্ছা তাদের। কিন্তু তিন ক্লাবের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার ইচ্ছা থাকলেও, সেসব মামলা প্রত্যাহার করে নিতে হচ্ছে তাদের। মাদ্রিদের মার্কেন্টাইল আদালতের বিচারক ম্যানুয়েল রুইজ দে লারা গত সপ্তাহে উয়েফাকে পাঁচ দিনের মধ্যে সব মামলা প্রত্যাহার করার নির্দেশ দেন। আদালতের ইচ্ছাকে সম্মান দেখিয়ে মামলা প্রত্যাহার করে নিয়েছে উয়েফা।

default-image

উয়েফা এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, ‘আজ উয়েফার নিরপেক্ষ আপিল বিভাগের পাঠানো চিঠিটা গুরুত্ব দিয়ে দেখেছে উয়েফা। সেখানে বার্সেলোনা, জুভেন্টাস ও রিয়াল মাদ্রিদের বিরুদ্ধে তথাকথিত ‘সুপার লিগ–এর সংশ্লিষ্টতার জন্য উয়েফার আইনি কাঠামোর সম্ভাব্য লঙ্ঘনের জন্য যে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা শুরু হয়েছিল, সেটা পক্ষপাতিত্ব না করে বাতিল বলে ঘোষণা করা হয়েছে।’

সুপার লিগের ঘোষণায় রিয়াল মাদ্রিদ, জুভেন্টাস ও বার্সেলোনা ছাড়াও আতলেতিকো মাদ্রিদ, ইন্টার মিলান, এসি মিলান, লিভারপুল, ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড, আর্সেনাল, ম্যানচেস্টার সিটি, চেলসি ও টটেনহাম ছিল। কিন্তু এই লিগের ঘোষণা আসার পরই ফুটবল সংশ্লিষ্ট সবাই ও সমর্থকদের ক্ষোভের আগুন জ্বলে ওঠার পর পিছু হটে বাকি নয় ক্লাব।

default-image

গত মে মাসে সুপার লিগের বাকি নয় দলকে ১ কোটি ৫০ লাখ ইউরো জরিমানা করেছিল উয়েফা। এ ছাড়াও উয়েফার প্রতিযোগিতা থেকে এই মৌসুমে ক্লাবগুলোর প্রাপ্ত আয়ের ৫ শতাংশ কেটে রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল।

গতকাল সোমবার উয়েফা সব আইনি ব্যবস্থা তুলে নেওয়ার ফলে নয় ক্লাবকে আর জরিমানা দিতে হবে না বলে জানিয়েছে স্কাই নিউজ। তবে নতুন করে কোনো বিদ্রোহী লিগ চালুর চেষ্টা করা হলে বা ইউরোপিয়ান সুপার লিগ আবার জাগিয়ে তোলার চেষ্টা করলে আবার আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার কথা জানিয়ে দিয়েছে উয়েফা।

ফুটবল থেকে আরও পড়ুন
মন্তব্য করুন
বিজ্ঞাপন
বিজ্ঞাপন